দেবহাটায় স্বামী সন্তান ফেলে গৃহবধু নিখোঁজ, থানায় জিডি


546 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটায় স্বামী সন্তান ফেলে গৃহবধু নিখোঁজ, থানায় জিডি
জুলাই ৩১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা :
দেবহাটা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের এশার আলী সরদারের স্ত্রী স্বামী সন্তান ফেলে অজানার উদ্দ্যেশ্যে পাড়ি দিয়েছে। এ ঘটনায় এশার আলী বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় জিডি করেছেন। জিডি সূত্রে জানা গেছে, এশার আলীর স্ত্রী নার্গিছ পারভিন (৩৮) গত ২৪-০৭-১৬ ইং তারিখে তার বড় মেয়ে মুন্নীর পারুলিয়াস্থ স্বশুর বাড়িতে যায়। সেখান থেকে ঐদিনই দুপুর ১২ টার দিকে বাড়ির উদ্দ্যেশ্যে রওনা হয়। কিন্তু নার্গিছ পারভিন বাড়িতে না আসলে এশার আলী ও পরিবারের সদস্যরা অনেক খোজাখুজি করেন। নার্গিছ পারভিন সাংসারিক জীবনে ২ পুত্র ও ২ কন্যা সন্তানের জননী ছিলেন। পরে এশার আলী তার সকল আত্মীয় স্বজন ও সম্ভব সব জায়গায় খোজাখুজি করে তার স্ত্রীর কোন সন্ধান না পেয়ে দেবহাটা থানায় একটি সাধারন ডাইরী করেছেন। যার জিডি নং- ৮৬৬, তাং- ৩০-০৭-১৬ ইং। নার্গিছ বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় তার পরনে শাড়ি ও কালো রোরখা ছিল বলে ডাইরীতে উল্লেখ করা হয়েছে। এশার আলী তার স্ত্রীর কেউ সন্ধান পেলে তার ব্যবহ্নত ০১৯১৫-৭৮৬৮১০ মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করতে বিনীত নিবেদন করেছেন।
###

দেবহাটায় গাছ থেকে পড়ে,অষ্টম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রর মৃত্যু

দেবহাটার কামটায় নারকেল গাছ থেকে পড়ে অষ্টম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রর মৃত্যু হয়েছে । সে উপজেলার সখিপুর মাধ্যমিক  বিদ্যালয়ের ছাত্র কামটা গ্রামের শরিফুজ্জামান পুটুর পুত্র আরশাফুল ইসলাম (১৪)। জানা যায়, রোববার সকাল ৮ টার দিকে আরশাফুল তার বাড়ি কাছের একটি নারকেল গাছে নারকেল  পাড়ার জন্য উঠেছিলো হটাৎ তার হাত স্লিপ করে মাটিতে পড়ে যায়। স্থানীয় ও আতœীয় স্বজনরা মিলে প্রথমে সখিপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্মরত ডাক্তাররা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরশাফুলের  মৃত্যু হয়। আরশাফুলের  এই অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।