দেবহাটায় স্লুইচগেটের সামনে বালুর স্তুপ : চলাচলে প্রতিবন্ধকতা


259 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটায় স্লুইচগেটের সামনে বালুর স্তুপ : চলাচলে প্রতিবন্ধকতা
এপ্রিল ২৩, ২০১৬ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা :
দেবহাটা উপজেলার কয়েকটি স্থানে স্লুইচগেটের পাশে বালু রাখায় স্লুইচ গেটগুলি ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে গেটের পাশে যত্রতত্র বালু রাখা এবং ট্রাক বা ট্রলি দিয়ে বালু নিয়ে যাওয়ার কারনে পথচারীদের চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে এবং রাস্তার ক্ষতি হচ্ছে। সরেজমিনে জানা গেছে, বালু ব্যবসায়ীরা নদী থেকে বালু উত্তোলন করে নৌকায় করে নিয়ে এসে উপজেলার বসন্তপুর, ভাতশালা সহ কয়েকটি স্থানে স্লুইচ গেটের একেবারে উপরে ও পাশে বিক্রয় করার জন্য বালু মজুদ করে রাখে। এতে করে রাস্তার উপরে বালু এসে রাস্তা সংকুচিত হয়ে চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। আবার অন্যদিকে নৌকা থেকে বালু শ্রমিকদের মাধ্যমে বালু উপরে তোলার কারনে স্লুইচ গেটের পাশে অনেক জায়গা ভেঙ্গে গেছে। যার কারনে আস্তে আস্তে স্লুইচ গেটটি ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়ছে। বিষয়টি বালু ব্যবসায়ীদের সুনজরে আনলেও তারা কারো কথায় কর্নপাত না করে ইচ্ছেমত কাজ করে যাচ্ছে। যদি স্লুইচ গেটটি ভেঙ্গে যায় তাহলে নদীর পানির জোয়ারে অনেক এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা আছে। উপজেলা সদরের এবং ভাতশালা এলাকায় বিভিন্ন জায়গায় বালু রাখা হয়। কিন্তু ম্লইচ গেটের পাশে বালু না রেখে অন্যত্র রাখলে ম্লুইচ গেটগুলি রক্ষা পেতে পারে। পথচারীরা জানান, বালু ব্যবসায়ীরা বালু রেখে সেখান থেকে ট্রাক বা ট্রলি দিয়ে বালু নিয়ে যায়। প্রশাসনের পক্ষ থেকে যদি দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহন না করা হয় তবে ম্লুইচ গেটগুলির ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে অন্য তথ্য মতে জানা গেছে, জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয় থেকে বালুমহল ইজারা নিয়ে বালু ব্যবসায়ীরা নদী থেকে যে বালু উত্তোলন করছে তার কিছু সুনির্দিষ্ট নিয়মনীতি আছে। যদি কেউ সেসব নিয়মের ব্যতিক্রম করে তাহলে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ভুক্তভোগীরা প্রশাসনের যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।