দেবহাটা-কালিগঞ্জের ১৭ ইউপিতে ভোট গ্রহণ চলছে


161 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটা-কালিগঞ্জের ১৭ ইউপিতে ভোট গ্রহণ চলছে
নভেম্বর ২৮, ২০২১ কালিগঞ্জ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

॥ ইয়ারুল ইসলাম ॥

আজ রবিবার সাতক্ষীরার দেবহাটা ৫টি ও কালিগঞ্জের ১২টি ইউনিয়নে উৎসবের ভোট গ্রহন চলছে । নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ ও গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসন সব ধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। উৎসবমূখর পরিবেশে শনিবার কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছে দেওয়া হয় ভোট গ্রহণে উপকরণ। তবে ব্যালট পেপার দেওয়া হয়নি। ব্যালট পেপার দেওয়া হয় আজ রবিবার ভোরে। স্ব স্ব কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে কড়া নিরাপত্তায় এ ব্যালট দেওয়া হয়। এদিকে ভোট কেন্দ্রে শান্তি-শৃংখলা ও নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশের পাশাপাশি আনসাররা দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও দায়িত্ব পালন করছেন। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা রয়েছেন অতন্ত্র প্রহরীর ভূমিকায়।

এদিকে উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট এলাকায় আইন-শৃংখলা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে। ভোটকেন্দ্রগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে। ভোট কেন্দ্রের আশে-পাশের এলাকা পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে। এছাড়া গ্রাম-পাড়ার অলি-গলিতেও শোভা পাচ্ছে প্রার্থী ও তার প্রতীক সম্বলিত পোস্টার।

এদিকে, নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যে প্রার্থীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। তবে আতঙ্কের কথাও জানিয়েছেন অনেকে। এর আগে প্রচার-প্রচারণা চলাকালে নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর, পোস্টার, ব্যানার পোড়ানো ও ছেঁড়াসহ নানান ঘটনায় ভোটারদের মধ্যে এক ধরণের ভীতিকর অবস্থা সৃষ্টি হয়। তবে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপে ভীতিকর অবস্থা থেকে প্রীতিকর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান অনেকেই।
দুই উপজেলার ১৭ ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন ১৫ জন। ইতোমধ্যে ৯জনকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্র জানায়।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান পদে কালীগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউপিতে ৫৫ জন এবং দেবহাটা উপজেলার ৫টি ইউপিতে ১৭ জন প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, কালীগঞ্জের ১২ ইউপিতে ৯ জন বিদ্রোহী এবং দেবহাটার ৫ ইউপিতে ৯ জন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

এদিকে বিএনপি দলীয় সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান পদে কালীগঞ্জের ১২ ইউপিতে ১০ জন এবং দেবহাটায় ৫ ইউপিতে ২ জন নেতা-কর্মী স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, কুলিয়ার আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী আসাদুল ইসলাম, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি আছাদুল হক ও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক প্রাণনাথ দাশ। পারুলিয়ার আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক বাবু এবং অপর প্রার্থী গোলাম ফারুক বাবুর স্ত্রী আরিফা পারভীন, দেবহাটা সদরের আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী আলী মোর্তজা মো. আনোয়ারুল হক, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, সাবেক চেয়ারম্যান আ.লীগ নেতা নজরুল ইসলাম। সখিপুরের আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী শেখ ফারুক হোসেন রতন ও তার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় অংশ নেওয়া জেলা কাঁকড়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, আব্দুল আজিজ এবং আবু হাসান সাঈদ। নওয়াপাড়া ইউপির আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী আলমগীর হোসেন সাহেব আলী, তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল করিম।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, কুলিয়া ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ইউপি সদস্য পদে ৩৩ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী, পারুলিয়া ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ইউপি সদস্য পদে ৪০ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১২ জন প্রার্থী, সখিপুর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ইউপি সদস্য পদে ৪০ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১২ জন প্রার্থী, নওয়পাড়া ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ইউপি সদস্য পদে ৪২ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী, দেবহাটা সদর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৬জন ইউপি সদস্য পদে ২৯ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৯জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই শেষে বৈধ ঘোষণা করা হয়।

এদিকে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন থেকে, চেয়ারম্যান পদে ৬৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। সদস্য পদে ৪৬৫ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। ২ নভোম্বর মনোনয়নপত্র দখিলের শেষ দিন পর্যন্ত ১২ ইউনিয়নে মোট ৬৭১জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন বলে জানা যায়। উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১নং কৃষ্ণনগর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আকলিমা খাতুন লাকি, রওশন আলী কাগজী, সাফিয়া পারভীন, আব্দুর রহমান, নজরুল ইসলাম, শ্যামলী অধিকারী, জিএম, রবিউল্লাহ বাহার, শাহজাহান কবির, আশানুর রহমান এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৫ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৯ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। ২নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে শেখ রিয়াজ উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৫ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১০ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৩নং চাম্পাফুল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আব্দুল হান্নান গাইন, মোজাম্মেল হক গাইন, আব্দুল লতিফ মোড়ল এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ২৮ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৩ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৪ নং দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে দিদারুল ইসলাম, জুলফিকার আলী সাপুই, গোবিন্দ মন্ডল, প্রশান্ত সরকার এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৩২ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৩ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৫নং কুশুলিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আবুল কাশেম মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, আসফউদ্দৌলা খান, লতিফুর রহমান খান, শেখ এবাদুল ইসলাম, শেখ নাজমুল হোসেন, রেজাউল করিম, কাজী তাজুল ইসলাম এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪৫ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১১ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৬নং নলতা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আজিজুর রহমান পাড়, আবুল হোসেন, এসএম আসাদুর রহমান, আজমীর জামান, সাইদুর রহমান, শাহিনুর রহমান, শাহাদাত হোসেন এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৭, সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১১ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৭নং তারালী ইউনিয়নে এনামুল হোসেন, আব্দুল গফুর, একেএম, সফিকুজ্জামান, মহাব্বত আলী এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৯ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৮ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৮নং ভাড়াশিমলা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আবুল হোসেন, আফছার আলী গাজী, আব্দুল কুদ্দুস, নাজমুল হাসান, শওকাত আলী বিশ্বাস এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪০ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১০ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৯নং মথুরেশপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে শেখ আব্দুল ওয়াহেদ, শাহজান সিরাজ খান, ফিরোজ আহমেদ, রমেশ চন্দ্র বিশ্বাস, মিজানুর রহমান, শেখ তারিকুল ইসলাম, মো: আব্দুল হাকিম, শেখ মোজাফফর হোসেন, শেখ নাজমুল ইসলাম, শেখ আলাউদ্দিন, আকুঞ্জি বাবলুর রহমান এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪২ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৫ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ১০ নং ধলবাড়িয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আব্দুল করিম, আনোয়ারুস সাদাত, শেখ ফিরোজ আলম, সজল কুমার মুখার্জী, গাজী শওকাত হোসেন এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪১ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১১জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ১১ নং রতনপুর ইউনিয়নে আব্দুল ওয়াহেদ, এসএম, আনোয়ার হোসেন, এম আলীম আল রাজী এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪৮ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৪ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ১২ নং মৌতলা ইউনিয়নে শেখ অয়েজুর রহমান, ফেরদাউস মোড়ল, আশেক মেহেদী, শেখ খোরশেদ আলম, রুহুল আমিন, শেখ আলমগীর হোসেন, শেখ মাহবুবুর রহমান এবং সাধারণ ওয়ার্ডে ৪৩ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।