দেবাহাটার হাজী কেয়ামউদ্দিন কলেজের সভাপতির সার্টিফিকেট ভূয়া !


478 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবাহাটার হাজী কেয়ামউদ্দিন কলেজের সভাপতির সার্টিফিকেট ভূয়া !
এপ্রিল ১২, ২০১৭ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
দেবহাটা উপজেলার সখিপুরে অবস্থিত হাজী কেয়ামউদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজের সভাপতির বিরুদ্ধে ভূয়া সনদ দেখিয়ে সভাপতি পদে অসীন হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

সূত্র জানায়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি অনুসারে ডিগ্রী কলেজের সভাপতি হতে ন্যূনতম ডিগ্রী পাশের যোগ্যতা প্রয়োজন। কিন্তু কলেজের বর্তমান সভাপতি মোঃ আব্দুল মাজেদ সখিপুর হাইস্কুল হতে ১৯৯২ সনে মানবিক শাখা হতে ৫২৯ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় বিভাগে এবং খানবাহাদুর আহছানউল্লা কলেজ হতে ১৯৯৫ সনে অনিয়মিত ছাত্র হিসেবে মানবিক শাখা হতে ৪৮৯ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় বিভাগে উত্তীর্ণ হয়। তার সর্বমোট প্রাপ্ত নম্বর (৫২৯+৪৮৯)=১০১৮। ঐ শিক্ষাবর্ষে অর্থাৎ ১৯৯৫-৯৬ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মান শ্রেণিতে মানবিক বিভাগে অর্থাৎ ‘খ’ ইউনিটে ভর্তির জন্য আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা ছিল ১১০০ নম্বর। ওই সময় তার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মান শ্রেণিতে আবেদন করার মতো ন্যনতম যোগ্যতা (১১০০ নম্বর)-ই ছিলনা। অথচ সে কি করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে সমাজকল্যাণ বিষয়ে অনার্স পাস করে ? এটা নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।

এদিকে, বর্তমান সখিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন আব্দুল মাজেদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া ও তার সনদের বৈধতা যাচাই করার জন্য গত ১৯ ফেব্রুয়ারি’১৭ তারিখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর করেন। আবেদনের বিষয়টি মোঃ আব্দুল মাজেদ জানতে পেরে তড়িঘড়ি করে তার চাচা উপাধ্যক্ষ মোঃ আব্দুর রহমানকে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ দেওয়ার জন্য ১৩ এপ্রিল’১৭ তারিখ নিয়োগের দিন ধার্য্য করেছেন। যা সম্পূর্ণ নিয়ম বর্হিভূত। এঘটনায় উক্ত কলেজের সভাপতি সভাপতি মোঃ আব্দুল মাজেদের অনার্স ভর্তি ও সনদের বৈধতা সম্পর্কীত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত অধ্যক্ষ নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত রাখার জন্য জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।