দেশের অর্থনীতি নির্ভর করে কৃষির উপর : রবি এমপি


406 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেশের অর্থনীতি নির্ভর করে কৃষির উপর : রবি এমপি
অক্টোবর ২৭, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মীর মোস্তফা আলী :
সাতক্ষীরায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের গম, ভুট্টা ও খেসারি চাষাবাদে উৎসাহ প্রদানের নিমিত্ত প্রনোদনা সহায়ক কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্ত সাতক্ষীরা ব্যাবস্থাপনায় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সদর উপজেলা অডিটোরিয়ামে এ কর্মসুচির উদ্বোধন করেন সদর ২ আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ আব্দুল সাদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শেখ আমজাদ হোসেন।
বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম।

প্রধান অিতিথি তার বক্তব্যের শুরুতে সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু কৃষক ও শ্রমীকদের ভাল বাসতেন। তিনি জানতেন তাদের ভালবাসলে দেশর উন্নয়ন হবে এবং তাই হয়েছে। তিনি বলেন ৭১ পরবর্তী সময়ে ৭কোটি মানুষের দেশে যে জমিতে ফসল উৎপাদন করা হত এখন জনসংখ্যাবৃদ্ধির সাথে সাথে কৃষি জমি কমে যাওয়ায় ১৬ কোটি মানুষের সেই দেশে কম জমিতে ফসল উৎপাদন করে খাদ্যের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা হচ্ছে। এসব সম্ভব হয়েছে গ্রামের খেটে খাওয়া কৃষকদের জন্য। বর্তমান প্রধাম মন্ত্রীর নেতৃত্বে কৃষি মন্ত্রীর প্রচেষ্টায় কৃষি মন্ত্রনালয় কৃষকদের সহযোগিতা করে কম জমিতে বেশি ফসল উৎপাদন করে বিপ্লব ঘটিয়েছে। এছাড়া সাতক্ষীরা কৃষিতে অনেক এগিয়ে, সাতক্ষীরা আম বিদেশে রপ্তানি হয়েছে।

কুলচাষে এজেলার সুনাম আছে। কৃষকদের কারনে বাংলাদেশ খাদ্যে সয়ংসম্পন্ন হয়েছে। একটি দেশ অর্থনীতিতে নির্ভর করে কৃষির উপর। এজন্য সবাই মিলে কৃষিতে বিপ্লব ঘটাবেন এই আশাকরে তিনি কর্মসুচির উদ্বোধন ঘোষনা করেন।

প্রধান অতিথি সদর ২ আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি সদর উপজেলার ২২০০ জন গমচাষির প্রত্যেককে ২০কেজি গম বীজ, ডিএপি সার ২০ কেজি, এম ও পি সার ১০কেজি।

২৪০জন ভুট্টা চাষির প্রত্যেককে ২কেজি  ভুট্টাবীজ, ডিএপি সার ২০ কেজি, এম ও পি সার ১০কেজি
ও ৫০ খেসারি চাষির প্রত্যেককে ৮ কেজি খেসারি  বীজ, ডিএপি সার ১০কেজি, এম ও পি সার ৫কেজি।

সদর উপজেলায় ১৪টি ইউনিয়নের মোট ২৪৯০ জন চাষিকে এ কৃষি সহায়তা প্রদানের উদ্বোধন করেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ১২জন কৃষকের মাঝ উন্নত জাতের দোয়ার্ফ  নারিকেলের চারা বিতরন করা হয়।