দেশে জিকা আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তি শনাক্ত


277 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেশে জিকা আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তি শনাক্ত
মে ১১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email
দেশে প্রথমবারের মতো জিকা ভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে। ৬৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির বাড়ি চট্টগ্রামে।

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ডেঙ্গু প্রতিরোধের প্রস্তুতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে নিয়মিত পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে জিকা ভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে। ২০১৪ সালে সংগ্রহ করা তার রক্তের নমুনায় জিকা ভাইরাস পাওয়া গেছে।’

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আক্রান্ত ব্যক্তি চট্টগ্রামের বাসিন্দা; তার বয়স ৬৭ বছর। তবে তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা ভালো আছেন।’

তবে এ নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মশা থেকে দূরে থাকতে হবে প্রত্যেক গর্ভবতী নারীকে। জিকা ভাইরাসের কারণে তার গর্ভের সন্তানের মস্তিষ্ক অপরিপক্ক থেকে যেতে পারে এবং শিশুর মাথা স্বাভাবিকের চেয়ে আকারে ছোট হতে পারে (মাইক্রোসেফালি)।’

১৯৪৭ সালে আফ্রিকার দেশ উগান্ডায় প্রথম জিকা ভাইরাস ধরা পড়ে। মশাবাহিত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে সাধারণত প্রাপ্তবয়স্কদের দেহে সামান্য জ্বর, মাথা ও হাড়ের সংযোগ স্থলে ব্যথাসহ ছোটখাটো লক্ষণ দেখা দেয়। তবে এতে সচরাচর মৃত্যুর না হলেও সবসময় এর লক্ষণও স্পষ্ট থাকে না।

সংবাদ সম্মেলনে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘ঢাকা মেডিকেল কলেজ, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ, খুলনা মেডিকেল কলেজ এবং চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসা রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল ডেঙ্গু পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য। এই নমুনা বিশ্লেষণের সময় জিকা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। জিকা ভাইরাস নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় ওই ব্যক্তির শরীর থেকে সংগৃহীত নমুনা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) কাছে পাঠানো হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জিকা ভাইরাস নিশ্চিত করার পর এ ঘোষণা দেওয়া হলো বলেও জানান ডা. মাহমুদুর রহমান।

মশাবাহিত জিকা ভাইরাসকে গত ফ্রেব্রুয়ারিতে জরুরি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য সঙ্কট হিসেবে ঘোষণা করেছে ডব্লিউএইচও। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের এখনও কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি।

জিকা ভাইরাস ছোঁয়াচে নয়। তবে যৌন সংসর্গের মাধ্যমে জিকা সংক্রমণের কয়েকটি ঘটনা যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সে সম্প্রতি ধরা পড়েছে। আক্রান্ত দেশগুলো ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে মশার বংশবিস্তার রোধ ও মশা নিধনের ওপর জোর দিচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে প্রাক মৌসুম ও বর্ষা মৌসুম পরবর্তী সময়ে মশানিধন কার্যক্রম জোরদার করার ওপর গুরুত্বরোপ করা হয় এবং ডেঙ্গুরোগ প্রতিরোধে সব জেলায় তরুণদের সঙ্গে নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানানো হয়।

এছাড়াও জিকা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও স্বাস্থ্যগত ঝুঁকির নানাদিকসহ সাবধানতার বিষয়গুলো অবহিত করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোহাম্মদ নুরুল হক, অধ্যাপক ডা. শামসুর রহমান প্রমুখও উপস্থিত ছিলেন।