ধুলায় পরিণত হয়েছে সাতক্ষীরা শহর :ছড়াচ্ছে রোগ জীবানু


834 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ধুলায় পরিণত হয়েছে সাতক্ষীরা শহর :ছড়াচ্ছে রোগ জীবানু
ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হক ::
ধুলায় পরিণত হয়েছে সাতক্ষীরা শহর। শহরের প্রায় সবগুলো রাস্তার পিচ দীর্ঘ দিন থেকে উঠে যাওয়ায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘ দিন সড়ক সংস্কার না হওয়ায় শহরবাসীর দুর্ভোগের অন্ত নেই। সড়কের পিচ উঠে মাটি বেরিয়ে গেছে। দীর্ঘ দিন এমন অবস্থা সৃষ্টি হলেও সংস্কারের উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। তবে, ভুক্তভোগীরা জানান, শহরের প্রধান সড়কগুলো কংক্রিটের ঢালাই দিয়ে দীর্ঘ স্থায়ী করা যায়। এ ক্ষেত্রে সমন্বিত পরিকল্পনা প্রয়োজন। একই অবস্থা জেলা জুড়ে। ফলে ছড়াচ্ছে রোগ জীবানু।
ভুক্তভোগীরা জানান, সাতক্ষীরা শহরের দুই জন সংসদ সদস্য থাকলেও শহর নিয়ে কোন মাস্টার প্লান নেই। শহরে থেকেও মানুষের দুর্ভোগ নিয়ে তাদের যেন কোন মাথা ব্যাথা নেই। নেই কোন মাস্টার প্লান। ফলে শহরের রাস্তার অবস্থা পূর্বের চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছে।
ভুক্তভোগীরা আরো জানান, শহরের খুলনা রোড-বাঙ্গালের মেড়, লাবনী মোড় থেকে পুরাতন সাতক্ষীরা, কলেজ মোড়, পোষ্ট অফিস মোড় হয়ে নারিকেলতলা পর্যন্ত দীর্ঘস্থায়ী কংক্রিটের সড়ক নির্মাণ করলে আরো টেকসই হবে। সেই সাথে প্রত্যের দোকানের সামনে ঢালাই করলে ধুলামুক্ত হওয়া যাবে ৩০/৩৫ বছর পর্যন্ত। আর এই উদ্যোগ নিতে হলে সমন্বিত দীর্ঘস্থায়ী পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।
সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা মহাসড়ক ও সড়কগুলোর দীর্ঘ সংস্কার না করার অভাবে সড়কগুলোতে পিচের ছাল চামড়া উঠে খানা খন্দে পরিনত হয়েছে। সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের বর্ডার গার্ড (বি,জি,বি) হেডকোয়াটার প্রথম গেটের সামনে হতে তালতলা পর্যন্ত, সাতক্ষীরাÑযশোর সড়কের বাসটার্মিনাল হতে কদমতলা বাজার, সাতক্ষীরা Ñকালিগঞ্জ সড়কের খুলনা রোড হতে কুখরালী মোড় পর্যন্ত সড়কটির ছাল চামড়া উঠে বড়বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে খানা খন্দে পরিনত হয়েছে।
সূত্র আরো জানায়, প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভার অধিনে অধিকাংশ রাস্তার ছাল চামড়া নেই। রাস্তায় ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। তবে সংস্কার হয়নি দীর্ঘ দিনেও। সূত্র আরো জানায়, নির্বাচনের পরে একটি রাস্তায়ও সংস্কার হয়নি পৌরসভার। ফলে ধুলোয় অন্ধকার হচ্ছে শহর।
সূত্র আরো জানায়, সাতক্ষীরার মহাসড়কের সংস্কারের নামে সড়কের বড় বড় গর্ত গুলো আদলা ইট দিয়ে পূরণ করে বড় বড় গর্ত গুলো কোন রকম পিচ দিয়ে সড়কের সংস্কার দেখায় সাতক্ষীরার সড়ক ও জনপদ বিভাগ। সাতক্ষীরার মহাসড়ক গুলো দীর্ঘযাবত সংস্কার না হওয়ার কারণে জনদূর্ভোগ চরমে পৌঁছে গেছে। ধুলা – বালিতে অন্ধকার হয়ে নারী শিশু বৃদ্ধসহ সব বয়সের মানুষে জন্য কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সড়কগুলোতে। এসব মহাসড়ক দিয়ে বাস ট্রাক সহ ভারি যান বাহন চলাচল চরম ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু ভারি যানবাহন নয়, ভ্যান ইজিবাইক টেম্পুসহ ছোট যানবাহন চালকরা যাত্রী নিয়ে চরম ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে চলাচল করছে।
ট্রাক ও বাস চালকরা জানান, সড়কটি এখন মরণ ফাঁদ হয়েছে যা একটু অসতর্ক হলেই নিশ্চিত দূর্ঘটনা। আবার অনেক সময় দূর্ঘনার এড়াতে সতর্ক থাকলেও কাজ হচ্ছে না। পন্য বোঝাই ভারি যান বাহনের টাল সামলানো যাচ্ছে না। মহা সড়কগুলো বড় বড় গর্তে পড়ে উল্টে যাচ্ছে বাস- ট্রাক ও ছোট ছোট যানবহন গুলো।
চালকরা ও পথচারিরা জানান, মহাসড়ক হলেন মিলগেট, বর্ডার গার্ড হেডকোয়াটার্র,তালতলা স্কুল, বাসটার্মিনাল হতে কদমতলা বাজার, খুলনা রোড মোড়, হতে চায়না বাংলা শফিং সেন্টারের সামনে,ও কুরালী মোড় পর্যন্ত  সহ বিভিন্ন এলাকায় সড়কের পিচের ছাল চামড়া উঠে বড় বড় গর্ত পরিনত হয়েছে  যে, এসব বড় বড় গর্ত পার হবার সময় মনে হয়  ফুলছিরাত পার হচ্ছি। জীবনটা থাকে সব সময় হাতের মুঠোয়। অনেক ক্ষেত্রে যানবাহনের চাকায় লেগে পাথর উঠে লাগে পরচারীর গায়ে।
সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু জানান, অনেক সড়কের টেন্ডার দ্রুত দেওয়া হবে। এ জন্য কাজ করা হচ্ছে।