ধুলিহর ইউনিয়নের ৩ গ্রাম বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হলো


853 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ধুলিহর ইউনিয়নের ৩ গ্রাম বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হলো
আগস্ট ২৯, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মাহফিজুল ইসলাম আককাজ :
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ধুলিহর ইউনিয়নে মাটিয়াডাঙ্গা, নেহালপুর ও তেঁতুলডাঙ্গা  ৩টি গ্রামে বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে। আলোকিত হলো ওই তিনটি গ্রাম।
সোমবার দুপুরে ধুলিহর ইউনিয়নের পল্লী উন্নয়ন উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে পল্লী উন্নয়ন উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি এস. এম. মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে স্লুইচ টিপে একযোগে ৩টি গ্রামের ১শ’ ৯৪টি পরিবারের নতুন বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এ সময় তিনি বক্তব্যে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয়। বাস্তবে রুপ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি আরো বলেন, দেশের উন্নয়নে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগের বিকল্প নেই। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দিতে বদ্ধ পরিকর। আগামী দেড় বছরের মধ্যে সদর উপজেলার প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে যাবে। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার গোবিন্দ আগার ওয়ালা, ধুলিহর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান (বাবু সানা), ইউপি সদস্য মো. আমিনুল ইসলাম, সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজি এম প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ নেতা রাম প্রসাদ মন্ডল, ভৈরব সরকার, মহাদেব কুমার ঘোষ ও এনামুল হক খোকনসহ দলীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এবং গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

##

 

ফিংড়ী ইউনিয়নে বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতার বই বিতরণ করলেন এমপি রবি
মাহফিজুল ইসলাম আককাজ :

“শেখ হাসিনার মমতা- বয়স্কদের জন্য নিয়মিত ভাতা’ ‘বিধবা ভাতার প্রচলন শেখ হাসিনার উদ্ভাবন’ প্রতিবন্ধীদের ভাতা প্রদান শেখ হাসিনার অবদান” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা সদরের  ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদে বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী ভাতা ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুবর্ণ নাগরিক হিসেবে পরিচয় পত্র প্রদান করা হয়েছে। সোমবার সকালে ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে  ইউপি চেয়ারম্যান মো.শামছুর রহমানের সভাপতিত্বে ভাতা ভোগীদের মাঝে প্রধান অতিথি হিসেবে বই ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুবর্ণ নাগরিক হিসেবে পরিচয় পত্র বিতরণ করেন সদর-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এ সময় তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যেমনি সাধারণ ও অসহায় মানুষদের ভালবাসতেন তেমনি তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ ও অসহায় মানুষদের ভালবাসেন। তাই এ সকল ভাতা প্রদান করছেন।

SAM_1879 copy

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের সরদার, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মকসুমুল হক, সদর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. রোকনুজ্জামান, ফিংড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি লুৎফর রহমান, ইউপি সদস্য মহাদেব কুমার ঘোষ, রাম প্রসাদ মন্ডল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ৬০ জন বয়স্ক বিধবা  ২২ জন ভোগীদের প্রত্যেক কে এককালীন ৪৮০০/- এবং ৫৫ জন প্রতিবন্ধীদের প্রত্যেককে ৬০০০/- টাকা করে ভাতা প্রদান করা হবে। এছাড়া ৪৩৩ জন প্রতিবন্ধীদের মাঝে ডিজিটাল পরিচয়পত্র প্রদান করা হয়।