নতুন বছরে ভ্রমণ হোক নিরাপদ


114 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নতুন বছরে ভ্রমণ হোক নিরাপদ
জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

ঘুরতে যাওয়ার ইচ্ছা সবার থাকলেও নতুন বছরে নতুন নিয়মে করতে হবে ভ্রমণ। সরকার প্রদত্ত বিভিন্ন বিধিনিষেধ মেনে ভ্রমণ কিভাবে স্বাচ্ছন্দ্যময় করা যায় তা জানতে পারেন এখানে।

বিগত দুই বছর ধরে অনেক রকমের স্বাস্থ্যবিধির কথা শোনা গেছে। মৌলিকভাবে সেই নিয়মগুলোই মেনে চলা প্রয়োজন। মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইযারকে বানাতে হবে নিত্যদিনের সঙ্গী। তবে এখন নতুন একটি জিনিষ এই লিস্টে যোগ করা হয়েছে- টিকা সনদ। সরকার কর্তৃক ছোট-বড় কমবেশি সকলেই এখন নুন্যতম এক ডোজ টিকা পেয়েছে। অনেকের আবার ২ ডোজ টিকা নেওয়াও শেষ। তাই বিভিন্ন জায়গায় প্রবেশের জন্য টিকা সনদ অথবা টিকা নেওয়ার প্রমাণ এখন বাধ্যতামূলক। শুধুমাত্র হোটেল এবং রেস্টুরেন্টই নয়, এয়ারপোর্টেও টিকা গ্রহণের প্রমাণ দেখানোর দরকার পড়তে পারে। তাই ভ্রমণের গন্তব্য যেখানেই হোক, প্রথম ধাপ সবসময়ই হবে টিকা গ্রহণ। তবে টিকা নেওয়াই নিরাপত্তার শেষ ধাপ নয়, শিক্ষিত নাগরিক হিসেবে সেটিও মাথায় রাখা দরকার। ২ ডোজ টিকা নেওয়া হলেও, মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইযার সবসময় ব্যবহার করতে হবে। শুধু তাই নয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মানুযায়ী বজায় রাখতে হবে ৬ ফিট নিরাপদ দূরত্বও।
ভ্রমণ পূর্ববর্তী পরিকল্পনার কথা তো গেলো। এবার আসা যাক আসল ভ্রমণের বিষয়ে। যাতায়াতের ক্ষেত্রে আমাদের দেশে সবচেয়ে ব্যবহৃত মাধ্যম হল বাস। তবে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী বর্তমানে ৫০% ধারণক্ষমতায় বাস চলার বাধ্যতামূলক। সিটের সংখ্যা কমে আসার কারণে বেড়ে গিয়েছে চাহিদাও। পছন্দমত বাসে সময়মত টিকেট পেতে চাইলে আগে থেকে টিকেট বুক করে রাখার কোন বিকল্প নেই। কিন্তু বাসের কাউন্টারে যেয়ে টিকেট বুক করার প্রক্রিয়াটাও নতুন সমস্যার জন্ম দেয়। বাসা থেকে কাউন্টারে যেয়ে টিকেট কেনা শুধুমাত্র ঝুঁকিপূর্ণই নয়, বেশ ঝামেলারও। এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হয় যদি ঘরে বসেই টিকেট কাটার সুব্যবস্থা পাওয়া যায়। ঘরে বসে টিকেট কাটতে পারলে কাউন্টারে যেয়ে টিকেট কাটার বাড়তি ঝামেলাটা আর থাকবে না, আবার নিরাপত্তাও নিশ্চিত হবে।

এই অনিশ্চিত পরিস্থিতির মাঝে আমাদের সবারই সর্বোচ্চ উদ্বেগ কাজ করে নিজেকে ও আপনজনদের নিরাপদ রাখার জন্য। এই দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির জন্যই অনেকে বাসের বদলে প্লেন পছন্দ করেন। যাত্রী সংখ্যা কিছু কম হওয়ায় বাসের তুলনায় প্লেনে নিরাপত্তা কিছুটা বেশি বলা যায়। তবে প্লেন টিকেট কাটার ব্যাপারটা করতে হয় বেশ চিন্তা ভাবনা করে। বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের টিকেটের দামের মাঝে থাকে অনেক পার্থক্য। আবার পার্থক্যের পরিমাণটাও ঠিক নগণ্য নয়। একটু ঘাটাঘাটি করে সঠিকভাবে সিধান্ত না নিলে, নিশ্চিত বেস্ট ডিলগুলো হারিয়ে ফেলতে পারেন। কিন্তু অনায়াসে অনেকগুলো এয়ারলাইন্সের টিকেটের মূল্য কিভাবে তুলনা করা যায়? এক্ষেত্রে দেখে নিতে পারেন গোযায়ান-এর ওয়েবসাইটটি। বাস হোক বা প্লেন, অনলাইনেই দেখে নেওয়া যায় বিভিন্ন রুটের বাস ও প্লেনের টিকেটের দাম। নিজের ভ্রমণ পরিকল্পনার সাথে যেই সময়ের এবং যেই দামের টিকেট প্রয়োজন, তা নিজে দেখেই বাছাই করে নিতে পারবেন।

সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাইলেও, কাজের জন্য দূর-দূরান্তে যাওয়ার প্রয়োজনটা থামিয়ে রাখা সম্ভব না। দূরপাল্লার যাত্রায় অবশ্যই নিরাপত্তা নিয়ে বেশি সচেতন থাকতে হবে। দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে শুধুমাত্র মাস্ক এবং হ্যান্ড সানিটাইজার সাথে রেখেই নিরাপত্তার কথা ভুলে চলাচল করা ঠিক না। বাইরে যাওয়ার আগেই, সেই গন্তব্যে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কি না তা দেখে নেওয়া দরকার। পারিপার্শ্বিক পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন না থাকলে দায়িত্বশীলতা বজায় রাখা সম্ভব না। আগে থেকে যদি জানতে হয় কোন কোন হোটেলে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে তবে ঘুরে আসতে পারেন গোযায়ান এর ওয়েবসাইট থেকে। কোন কোন হোটেলে টিকা সনদ দেখানো বাধ্যতামূলক, তা দেওয়া আছে তাদের “হোটেল পলিসি” এর নিচেই। দূরপাল্লার যাত্রা এই সময়ে অনেকেই এড়িয়ে চলতে চান। কাছাকাছি কোথাও যেয়েই সুন্দর সময় কাটাতে চাইলেও গোযায়ান এই দেখে নিতে পারবেন আশে পাশের নিরিবিলি রিসোর্টগুলো। বুক করার সময়, কোথায় কত খরচ হচ্ছে তার লিস্ট দেখতে পাবেন বিলের সাথেই। কোনরকম হিডেন চার্জ ছাড়াই কিনে ফেলতে পারবেন পছন্দের হোটেলটি।

দেশের মাঝে ভ্রমনের বিগত বছরে বেশি জনপ্রিয় হলেও, ধীরে ধীরে শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ। নতুন পরিস্থিতির সাথে তাল মিলিয়ে বিভিন্ন দেশ নিরাপত্তা বজায় রেখে প্রবেশাধিকার দিচ্ছে বিদেশিদের। কিন্তু বর্তমানে আন্তর্জাতিক ভ্রমণটা বেশ বিভ্রান্তিকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন দেশের ভ্রমণের বিধিনিষেধ, RT-PCR টেস্টের নানারকমের সময়সীমা, ইত্যাদি সবই আলাদা। তাই বিদেশভ্রমনের আগে পরিকল্পনায়ই চলে যায় অনেকটা সময়। এই সমস্যার সমাধান করতেই বিভিন্ন দেশের সর্বশেষ ভ্রমণ নির্দেশনাগুলো ওয়েবসাইটেই দেখার ব্যবস্থা আছে। প্রতিটি দেশের সর্বশেষ বিধিনিষেধের লিস্ট পেয়ে যাবেন এখানে। তাছাড়া টিকেট কেনার সময়ই RT-PCR টেস্টের সময় নির্ধারণ করে ফেলতে বুক করে ফেলতে পারবেন ওয়েবসাইট থেকেই। আলাদা করে নিজের আশেপাশের টেস্ট সেন্টার খোজার কোন প্রয়োজনই হবে না।