নবজীবনে বিভিন্ন কর্মসুচির মধ্য দিয়ে গনহত্যা দিবস উদযাপন


341 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নবজীবনে বিভিন্ন কর্মসুচির মধ্য দিয়ে গনহত্যা দিবস উদযাপন
মার্চ ২৫, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নবজীবনে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন,দাড়িয়ে নিরবতা পালন ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে গনহত্যা দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে ২৫ মার্চ শনিবার রাত ১২টা ১মিনিেিট নবজীবনের শহীদ মিনার পাদদেশে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে দিবসটির সুচনা করেন নবজীবনের  নির্বাহী পরিচালক তারেকুজ্জামান খান। পরে নিজস্ব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায়  প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখে জেলা জাসদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী রিয়াজ। নবজীবনের নির্বাহী পরিচালক তারেকুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নবজীবন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ শেখ রফিকুল ইসলাম,নবজীবন ইন্সটিটিউটের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান মোল্ল্যা ও উপাধ্যক্ষ মীর ফখরউদ্দীন আলী আহমেদ। বক্তারা বলেন মুক্তিযুদ্ধের সূচনালগ্নে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে ঢাকায় ‘অপারেশন সার্চলাইট’ নামের এক বর্বর সামরিক অভিযানের মধ্য দিয়ে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী গণহত্যার সূচনা করেছিল, পরবর্তী নয় মাস ধরে তা অব্যাহত ছিল দেশের বিভিন্ন এলাকায়। আজ সেই ভয়াল ২৫ মার্চ। ওই রাতের অগণিত শহীদসহ মুক্তিযুদ্ধের পুরো নয় মাসে প্রান উৎসর্গকারী সব শহীদের স্মৃতির প্রতি আমরা গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করছি।এ বছর ২৫ মার্চ এসেছে হাজির হয়েছে স্বস্তির সংবাদ নিয়ে। ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবস ঘোষণা করা এবং এ দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ের প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের প্রচেস্টা চলছে এবং একটি প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে। তবে আন্তর্জাতিক পরিসরে এই দিবসের স্বীকৃতি আদায়ের চেয়েও বেশি প্রয়োজন একাত্তরের গণহত্যার আন্তর্জাাতিক স্বীকৃতি অর্জন। তারা আরো বলেন ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাত থেকে পরবর্তী নয় মাস ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী যেসব হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে, জাতিসংঘের গণহত্যার সংজ্ঞায় তা নিশ্চিতভাবেই গণহত্যা, সুতরাং দিবসটিকে গণহত্যা হিসেবে প্রমান করা সম্ভব। সেটি শুধু আমরা নয় দেশের প্রত্যেকটি সুনাগরিকের আস্থা এবং বিশ্বাষ।এসময় নবজীবন ইনন্সটিটিউট ও নবজীবন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি