নব্য জেএমবির মিডিয়া শাখার প্রধানসহ ৪ সদস্য গ্রেপ্তার


141 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নব্য জেএমবির মিডিয়া শাখার প্রধানসহ ৪ সদস্য গ্রেপ্তার
নভেম্বর ৭, ২০২০ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

বগুড়ায় নব্য জেএমবির মিডিয়া শাখার প্রধানসহ ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলেন- জাকারিয়া জামিল (৩১), মো. তানভীর আহম্মেদ ওরফে আবু ইব্রাহিম (২৫), মো. আতিকুর রহমান (২৮) ও মো. আবু সাঈদ (৩২)।

শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার চন্ডিহারা এলাকা থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্যসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (জিআইজি) মো. আব্দুল বাতেন শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বগুড়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান। এসময় বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞাসহ জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ব্রিফিংয়ে ডিআইজি মো. আব্দুল বাতেন বলেন, ওই ৪ জঙ্গি তাদের পরবর্তী সাংগঠনিক তৎপরতা নির্ধারণে সমবেত হয়েছিল। গোপনে খবর পেয়ে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করেছে। তাদের কাছ থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, একটি ওয়ান শুটার গান, ১ কেজি বিস্ফোরক দ্রব্য (পটশিয়াম ক্লোরেট), ২ রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিন, দু’টি কার্তুজ, ৩টি বার্মিজ চাকু, ১টি চাপাতি ও ৪টি ব্যাটারিসহ বেশ কিছু তার উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা নব্য জেএমবির সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে। উদ্ধার করা বিস্ফোরক দিয়ে ৫০টি বোমা তৈরি করা সম্ভব।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তারদের মধ্যে জাকারিয়া জামিল নব্য জেএমবির মিডিয়া শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিল। টাঙ্গাইলের ভুয়াপুর থানার জগতপোড়া এলাকার খন্দকার গোলাম সারোয়ারের ছেলে জামিল ঢাকার শেরেবাংলা নগরের পশ্চিম রাজাবাজারে বসবাস করতো। সে অনলাইনে আরবিতে প্রকাশিত জঙ্গিবাদ সংক্রান্ত সব প্রকাশনা বাংলায় অনুবাদ করে প্রচার করতো। তার বিরুদ্ধে ঢাকার আশুলিয়ায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তার তানভীর আহম্মেদ ওরফে আবু ইব্রাহিম জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) বিভাগের ছাত্র। গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানার তরশ্রীরামপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে তানভীর নব্য জেএমবির আইটি শাখার সদস্য ছিল। তবে সে ঢাকার খিলগাঁওয়ের বনশ্রী এলাকায় বসবাস করতো। এ বছরের জানুয়ারি মাসে ঢাকার আশুলিয়া এলাকায় তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ড্রোন তৈরির সামগ্রীসহ তার স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। অবশ্য তখন সে পলাতক ছিল। অপর দুই জঙ্গির মধ্যে ময়মনসিংহ জেলার চকশ্যামরামপুর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে মো. আতিকুর রহমান নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের ছাত্র। নব্য জেএমবির নতুন এই সদস্য অর্থ সংগ্রহের দায়িত্ব পালন করতো। একই এলাকার আব্দুল হাকিমের ছেল আবু সাঈদও সংগঠনের নতুন সদস্য। সে যুদ্ধ করার জন্য মধ্যপ্রাচ্যে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

ডিআইজি মো. আব্দুল বাতেন জানান, তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র, বিস্ফোরক দ্রব্য এবং সন্ত্রাসবিরোধী আইনে পৃথক মামলা হবে। তাছাড়া তাদের জিজ্ঞাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।