নলতায় ঘুরে গেল নির্বাচনী দৃশ্যপট, গোলক ধাঁধায় অনেক নেতাকর্মী


450 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নলতায় ঘুরে গেল নির্বাচনী দৃশ্যপট, গোলক ধাঁধায় অনেক নেতাকর্মী
অক্টোবর ১০, ২০২১ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সোহরাব হোসেন সবুজ ::

যতই ঘনিয়ে আসছে ইউপি নির্বাচন, ততই গরম হচ্ছে নির্বাচনী মাঠ।
তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগত। এই নির্বাচন সামনে রেখে কালিগঞ্জের নলতা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মাঠ পর্যায় প্রচার প্রচারনা জমে উঠেছে। এবার নলতা ইউপি নির্বাচন নিয়ে বেশ ভিন্ন স্বাদের গুঞ্জন শুরু হয়েছে।
এ নির্বাচনে সাবেক চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান সেলিম, বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান এবং আ.লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী আবুল হোসেন পাড় ও খাদেমুল ইসলাম তুফান এই চার জনের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা জনসম্মুখে উঠে এসেছে। তবে, উক্ত চারজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে আ.লীগের দুই প্রার্থী নিয়ে
ছিল বেশ কিছু দিধা-বিভক্তির গুঞ্জন। যার অবসান ঘটেছে দলীয় বর্ধিত সভার মাধ্যমে। সভায় সকলের সম্মতি ও সিদ্ধান্তক্রমে দলীয় এই দুজন মনোনয়ন প্রত্যাশী একাত্মতা বা ঐক্য ঘোষণা দেন। প্রার্থীরা বলেন, আমরা দলের মধ্যে ভাঙন সৃষ্ট করব না। আমরা একসাথে প্রচার প্রচারণার কাজ করব তবে দল যাকে মনোনয়ন দিবে, আমারা তাকেই সকল প্রকার সহযোগিতা করব। বিদ্রোহী হয়ে দলের মধ্যে কোন্দল সৃষ্টি করব না। এ শপথ নিয়ে বিজয় অর্জনের লক্ষ্যে মাঠে সভা সমাবেশ শোভাযাত্রা করে যাচ্ছেন তারা।
এদিকে আ.লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী দুজনের ঐক্য হওয়ায় নির্বাচনী দৃশ্যপট ঘুরে গেছে বলে মনে করেন বিভিন্ন দলের নেতাকর্মী সহ ইউনিয়নের ভোটাররা। আর এই ঐক্য যদি ভোটের দিন পর্যন্ত বহাল থাকে তবে নলতার নির্বাচন হাড্ডাহাড্ডি বলে অনেকে ধারনা করছেন।
এখন পর্যন্ত সাবেক চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান সেলিমকে ভোটের মাঠে কিছুটা নিষ্কৃয় দেখা গেলেও বর্তমান চেয়ারম্যান আজিজুর রহমানকে অনেকটাই ফুরফুরে মেজাজে দেখা গেছে। তার বিগত পাঁচ বছরের কর্মকাণ্ডের উপর ভিত্তি করে আজিজুর রহমান জনসাধারণের উপর আস্থা নিয়ে চলছে বলে অনেকের মন্তব্যে ফুটে ওঠে। আবার তিনি গতবার বিএনপি থেকে নির্বাচন করলেও এবার বিএনপি বা আ.লীগ থেকে নির্বাচন করতে পারবেন না বিধায় নির্বাচন নিয়ে হয়ত বিড়ম্বনা হতে পারে। যে কারনে তিনি সতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী মাঠে লড়বেন বলেও ভোটাররা মনে করছেন। কিন্তু আজিজুর রহমানের কর্মীরা মনে করছেন, তিনি যেহেতু সততা, দক্ষতা ও সুনামের সাথে ইউনিয়ন পরিচালনা করেছেন সেহেতু জনসাধারণ তাকেই আবার নির্বাচিত করবেন বলে তারা আশাবাদী।
অন্যদিকে আ.লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী দুই প্রার্থী একসাথে হয়ে কাপিয়ে তুলেছে নির্বাচনী মাঠ। তারাসহ নেতাকর্মীরা মনে করেন, জনগণ সবসময় নতুনত্ব চায়। নতুন নেতৃত্ব চায়। নেতৃত্বে পরিবর্তন আসলে কাজের গতি আসে। নেতৃত্ব পরিবর্তে ঐক্য প্রার্থীও বিজয় অর্জন করবেন বলে আশাবাদী তারা। যেকারনে স্থানীয় অনেক নেতা-কর্মীরা বা ভোটাররা গোলক ধাধায় পড়েছেন। কারন, অনেক আ.লীগ নেতাকর্মীকেও ইতিপূর্বে চেয়ারম্যান আজিজুর রহমানের সাথে ও কাজে দেখা গেছে। আবার নলতার অনেক বিএনপির নেতাকর্মীও আ.লীগের সাথেসঙ্গে কাজেকর্মে দেখা গেছে। এতদিন সবাই যার যার পছন্দের প্রার্থীর সাথে থাকলেও এখন আ.লীগ দলীয় ঐক্য হওয়ায় ঐসব নেতাকর্মীরা পড়েছে লোকলজ্জায় ও বিড়ম্বনায়। এবং অনেকে পড়েছে গোলক ধাঁধায়। এখন নলতার নির্বাচনী ট্রেন কখন কোনদিকে মোড় নেয় এ নিয়েই নতুন গুঞ্জন ও নব্য ভাবনায় স্থানীয়রা।