নলতায় বুলবুলের আঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি


474 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নলতায় বুলবুলের আঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
নভেম্বর ১০, ২০১৯ কালিগঞ্জ দুুর্যোগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সোহরাব হোসেন সবুজ, নলতা ::

ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে নলতা ও তার আশেপাশে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। বিশেষ করে বিদ্যুৎ লাইন, টিনশেডের বাড়িঘর ও গাছের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গাছ উপড়ে পড়ার ফলে বেশ কিছু পিচ ও ইটের রাস্তা নষ্ট হতে দেখা গেছে। সেই সাথে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ধানের।
শুক্রবার সারাদিন বৈরি আবহাওয়া থেকে রাতে শুরু হয় বুলবুলের আঘাত। গত রাত প্রায় ১টার দিকে থেকে উত্তর পূর্ব দিক থেকে ঘন্টায় প্রায় ১২০-১৩০ কিঃ মিঃ বেগে দমকা ঝড় শুরু হয়। এর সাথে প্রবল বৃষ্টিও হয়েছে। থেকে থেকে দমকা ঝড়ে সড়কের পাশের গাছগুলো উপড়ে পড়েছে। যে কারণে বিদ্যুৎ লাইন বিভিন্ন এলাকায় বিছিন্ন হতে দেখা গেছে। এতে করে এলাকাগুলো বর্তমানে বিদ্যুৎহীন অন্ধকারে পরিনত হয়েছে। সেই সাথে বিভিন্ন গ্রামে বসতবাড়ীর আশেপাশের কিছু গাছ ভেঙে বা উপড়ে বসতবাড়ীর উপরেও পড়তে দেখা গেছে। উড়ে গেছে বেশুকিছু টিন আর খোলার চাল।আবার অনেক গাছের গোড়া নড়বড়ে হয়ে হেলে বসতবাড়ীর উপর ঝুকে থাকতে দেখা গেছে। যেগুলোর ব্যবস্থা না নিলে যেকোন মুহুর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশংকা রয়েছে।

এদিকে গতকাল শুক্রবার ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব দেখা দেওয়ার সাথে সাথে নলতা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার অসহায় দরিদ্র লোকজনকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছিল। সেহারা সাইক্লোন শেল্টার, পাইকাড়া, কাশিবাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঘোনা কাশেমপুর শেল্টারে বহু মানুষের আশ্রয় নিতে দেখা গেছে। সকল আশ্রয়কেন্দ্রতে নলতা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান নিজেই তদারকি করেছেন। তিনি তার ইউপি সদস্য ও কর্মীদের সহযোগিতায় আশ্রয় নেওয়া লোকজনের মধ্যে যথাযথ খাবার বিতরণ করেছেন। ছুটেছেন দিকবিদিক। তার এমন ব্যবস্থাপনায় দরিদ্র আশ্রয়হীন ব্যক্তিগুলো ভরসা খুজে পেয়েছে। শনিবার বেলা প্রায় ১০ টা পর্যন্ত ঝড়ের দমকা চলতে থাকে। ঝড়কে উপেক্ষা করেও নলতার জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান ৯টি ওয়ার্ডেরপ্রতিটি গ্রামে গ্রামে ঘুরে খোজখবর নিয়েছে। এতে করে এলাকাবসীর কাছে তিনি ভরসাস্থল হিসাবে বিবেচিত হয়েছেন বলে জানা গেছে। ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো যাতে সাহায্য সহযোগিতা পায় সেজন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছে।