নলতা হাইস্কুলে শতবর্ষর অনুষ্ঠানে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা


608 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নলতা হাইস্কুলে শতবর্ষর অনুষ্ঠানে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা
এপ্রিল ৭, ২০১৭ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সোহরাব হোসেন সবুজ, নলতা:
জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে দুই দিন ব্যাপী ঐতিহ্যবাহী নলতা হাইস্কুলে শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় স্কুল প্রাঙ্গনে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়।

“অতীত স্বরণে হোক আগামীর উম্মেষ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা হযরত খানবাহাদুর আহছানউল্লা (রঃ) আর্শীবাদ ধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উদ্যপন উপলক্ষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বৃহস্পতি ও শুক্রবার ২ দিন ব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শতবর্ষ পুর্তি উপলক্ষে বিদ্যালয়কে সু-সজ্জিত আলোক সজ্জায় সাজানো হয়। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিশাল মঞ্চ, প্যান্ডেল ও গেট নির্মান করা হয়। শতবর্ষ উপলক্ষে দেশ বিদেশ থেকে আগত স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়।

অনুষ্ঠানে স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র সাবেক সফল স্বাস্থ্য মন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম এমপি, নলতা হাইস্কুলে প্রাক্তন ছাত্র সোসাইটির সভাপতি প্রকৌশলী আবুল কাশেম, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপ- সচিব ও নলতা হাইস্কুলের সভাপতি আবু মাসুদ, বিশিষ্ঠ নাট্য অভিনেতা আফজাল হোসেন, সাহিত্যক ও প্রবান্ধিক গাজী আজিজুর রহমানসহ স্কুলের অনেক জ্ঞানীগুনি ছাত্ররা আড্ডায় মিলিত হয়।

সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে গতকাল সকালে জাতীয় সংগীতের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন হয়। তারপর বেলুন ও শান্তির প্রতিক পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক এমপি ও সাতক্ষীরা ৪ আসনের এমপি জগলুল হায়দার ।

এরপর বিদ্যালয় চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। ‌র‌্যালীটি নলতা এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিদ্যালয় চত্বরে এসে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র সোসাইটির আয়োজনে এবং স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপ-সচিব আবু মাসুদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক এমপি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা ৪ আসনের এমপি জগলুল হায়দার, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুস সামাদ, যশোর শিক্ষা বোর্ডর চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল আলিম, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবর রহমান,

সাবেক অতিরিক্ত সচিব ডাক্তার খালিলউল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)অরুণ কুমার বিশ্বাস, কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম মাঈন উদ্দিন হাসান, ডাক্তার শহিদুল আলম, ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাশেম, দেশবরেণ্য অভিনেতা-নির্মাতা আফজাল হোসেন প্রমুখ।

প্রধান অতিথি এ সময় ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মাদক,সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ থেকে বিরত থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, “আগামী দিনের সু-নাগরিক হিসেবে তোমাদেরকে গড়ে উঠতে হবে, এ দেশের জন্য কাজ করতে হবে এবং তোমরাই একদিন বিশ্ব জয় করবে।”

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, শুধু ভাল ছাত্র-ছাত্রী হলেই চলবে না, সকলকে দেশপ্রেমিক হতে হবে। তথ্য সন্ত্রাসের মাধ্যমে আজকে আমাদের মেধাবী সন্তানদের নষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে।

আজ থেকে আমরা আরও একটি শপথ করি-কোন রকম নেশার সাথে আমরা নিজে জড়াবো না। এছাড়াও তিনি সকলকে দুর্নীতিমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সোনার বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাতক্ষীরা ৪ আসনের এমপি জগলুল হায়দার বলেন, এ জাতিকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হলে নতুন প্রজন্মকে কাজে লাগাতে হবে। কৃতী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, তোমরা তোমাদের শিক্ষা বোর্ডের মুখ উজ্জ্বল করেছ, সেজন্য তোমাদের অভিনন্দন জানাই। তোমরা শুধু মেধাবী হলেই চলবে না, নিজেকে সৎ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবে।

দিনব্যাপি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের পর প্রতিদিন সন্ধ্যার পর নলতা আহছানিয়া দরবেশ আলী মেমোরিয়াল ক্যাডেট স্কুলের পরিচালক সোহরাব হোসেন সবুজের পরিচালনায় সাতক্ষীরা ও স্থানীয় শিল্পীদের সমন্বেয়ে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে। ২য় দিনে নাট্য ব্যক্তিত্ব আবজাল হোসেনের পরিচালনায় দেশ খ্যাত শিল্পী এস.আই টুটুলের নেতৃত্বে মনোজ্ঞ সংগীত অনুষ্ঠান পরিবেশন হয়।

উল্লেখ্য, সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা গ্রামের জমিদার বাবু ভঞ্জ চৌধুরী ১৯১৭ সালের ২ জানুয়ারি বিদ্যালয়টির শুভ সূচনা করেন। পরে অবিভক্ত বাংলার শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক, নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনসহ অসংখ্য প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারক,

বিশিষ্ট সাহিত্যিক, দার্শনিক, সুফী-সাধক, পীরে কামেল সুলতানুল আউলিয়া কুতুবুল আকতাব গওছে জামান আরেফ বিল্লাহ হজরত শাহছুফী আলহাজ্জ খানবাহাদুর আহছানউল্লা (র.) এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিদ্যালয়টির ভবন নির্মাণ সহ বহু উন্নতি সাধিত হয়।

পীর কেবলার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ১৯১৯ সালে কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক বিদ্যালয় স্থায়ী স্বীকৃতি লাভ করে। ১৯১৭ সাল থেকে ১৯৪২ সাল পর্যন্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন বিখ্যাত শিক্ষাবিদ বাবু জ্ঞানেদ্রনাথ চক্রবর্তী।

এছাড়া ১৯৪৩ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল বাবু বিজয় নাথ মুখার্জি, ০১-০১-১৯৪৬ সাল থেকে ৩০-০১-১৯৪৯ সাল বাবু তারাপদ মুখার্জি, ৩০-০১-১৯৪৯ সাল থেকে১৫-০৮-১৯৪৯ সাল মো. মাহাবুবুর রহমান, ১৬-০৮-১৯৪৯ সাল থেকে ২৬-০২-১৯৫০ সাল (ভারপ্রাপ্ত) মো. জনাব

আলী, ২৭-০২-১৯৫০ সাল থেকে ২২-০৭-১৯৫০ সাল মো. আব্দুল হাই, ২৩-০৭-১৯৫০ সাল থেকে ৩১-০৭-১৯৮৩ সাল প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন মো. দরবেশ আলী।

তার প্রচেষ্টায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের মধ্যে একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। তার কঠোর পরিশ্রম, নিবিড় পরিচর্যা ও সঠিক পাঠদানের ফলে ১৯৭৬ সালে অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ডা. আবুল কালাম আজাদ সারাদেশের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করার গৌরব অর্জন

(বর্তমানে ঢাকা ক্যান্সার হাসপাতালের ডিডি হিসেবে কর্মরত আছেন) সহ সে সময় ছাত্র/ছাত্রীরা অভূতপূর্ব ও ঈর্ষনীয় ফলাফল অর্জন করতে সক্ষম হয়। উক্ত স্কুলের অনেক ছাত্র/ছাত্রী বর্তমানে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত হয়ে দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রেখে চলেছেন।

০১-০৮-১৯৮৩ সাল থেকে ২৯-০২-১৯৮৪ সাল এ কে মনছুর আহমেদ (ভারপ্রাপ্ত), ০১-০৩-১৯৮৪ সাল থেকে ১৪-০৫-২০০৩ সাল মো. ইসহাক, ১৫-০৫-২০০৩ সাল থেকে ১৯-০৪-২০০৪ সাল মো. ইউনুস (ভারপ্রাপ্ত), ২০-০৪-২০০৪ সাল থেকে ১৫-০৪-২০১১ সাল মো. ইউনুস, ১৬-০৪-২০১১

সাল থেকে ১৪-০৪-২০১৫ সাল মো. আব্দুল মোনায়েম (ভারপ্রাপ্ত), ১৫-০৪-২০১৫ সাল থেকে ১৭-০৫-২০১৫ সাল মো. আব্দুল মোমিন (ভারপ্রাপ্ত), ১৮-০৫-২০১৫ সাল থেকে চলমান প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মো. আব্দুল মোনায়েম।

##