নাটকীয়তার পর নন্দীগ্রামে শুভেন্দুকেই জয়ী ঘোষণা


202 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নাটকীয়তার পর নন্দীগ্রামে শুভেন্দুকেই জয়ী ঘোষণা
মে ২, ২০২১ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

নানা নাটকীয়তার পর বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের নন্দীগ্রামে অবশেষে বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকেই জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। জিত জিত করেও হেরে গেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই আসনে ভোটের ফল নিয়ে দিনভর চলে উত্তেজনা। এক পর্যায়ে মমতার জয়ের খবর দেয় সংবাদ মাধ্যম, তবে সে খবর বেশিক্ষণ টেকেনি। শেষ পর্যন্ত শুভেন্দুর বিজয়ী হওয়ার খবর ঘোষণা করা হয়।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যানুযায়ী, নন্দীগ্রামে ১ লাখ ৯ হাজার ৬৭৩ ভোট পেয়েছেন শুভেন্দু। মমতা পেয়েছেন ১ লক্ষ ৭ হাজার ৯৩৭ ভোট। সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত মিনাক্ষী মুখোপাধ্যায় ৬ হাজার ১৯৮ ভোট পেয়েছেন। শুভেন্দু জয়ী হয়েছেন এক হাজার ৭৩৬ ভোটে।

এরআগে সন্ধ্যার দিকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের জয়ের খবর আসে সংবাদ মাধ্যমে। নন্দীগ্রামে মমতা জয়ী হওয়ার খবর দিয়েছিল এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া ও আনন্দবাজার পত্রিকা।

এক হাজার ২০১ ভোটে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকে পরাজিত করেছেন বলে ওই খবরে বলা হয়। এএনআইর বরাত দিয়ে তারা খবরটি প্রকাশ করে। তবে এর কিছু সময় পরই আবার সংবাদমাধ্যমগুলো শুভেন্দুর জয়ের খবর দেয়।

আনন্দবাজার জানায়, নন্দীগ্রাম নিয়ে চরম বিভ্রান্তি। ১৭ রাউন্ড ভোটগণনার পর তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় সেখানে জয়ী হয়েছেন বলে খবর আসছিল। কিন্তু সন্ধ্যা গড়াতে দেখা যায় ১৬২২ ভোটে সেখানে জয়ী হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি নিজেই সে কথা জানিয়েছেন। আনন্দবাজারকে তিনি বলেন, ‘১৬২২ ভোটে জিতেছি আমি।’

নন্দীগ্রামে ভোটের ফল নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মমতা। আদালতে যাওয়ার কথাও জানান তিনি। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মমতা বলেছেন, ‘নন্দীগ্রামের মানুষের রায় মেনে নিচ্ছি। কিন্তু ওখানে ভোট লুঠ হয়েছে। আদালতে যাব আমরা।’

রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী কর্মকর্তা আরিজ আফতাব বলেন, ‘আপাতত জয়ী শুভেন্দু অধিকারী। পুনরায় গণনার ব্যাপারে এখনও কোনও আবেদন আসেনি। তা হবে কি না ঠিক করবেন রিটার্নিং অফিসার। এটা আংশিক না সম্পূর্ণ গণনা হবে সেটাও তিনি ঠিক করবেন।’

রোববার ভারতীয় সময় সকাল ৮টায় শুরু হয় ভোটগণনা। সকাল থেকে ভোটের খবরে বড় আকর্ষণ ছিল নন্দীগ্রাম। সেখানে দীর্ঘ সময় পিছিয়ে ছিলেন মমতা। তবে বেলা ২টার পর থেকে পরিস্থিতি পাল্টাতে থাকে। ১৫ রাউন্ড গণনার শেষে মমতা প্রতিদ্বন্দ্বী শুভেন্দু অধিকারীর চেয়ে এগিয়ে যান। তবে শেষ হাসি হাসেন শুভেন্দুই।

এই বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস টানা তৃতীয় দফায় জয়ী হতে চলেছে। জয়ের জন্য প্রয়োজন ১৪৮টি আসন। তারা পেয়েছে ২১২টি।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার মোট আসন ২৯৪টি হলেও নির্বাচনের মধ্যে দুই প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় দুটি আসনের ভোট স্থগিত হয়। ফলে সকালে ২৯২টি আসনের ভোট গণনা শুরু হয় কড়া নিরাপত্তার মধ্যেই। গত ২৭ মার্চ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের ভোট শুরু হয়। শেষ হয় গত বৃহস্পতিবার। আট দফায় ভোট পড়ার গড় হার ৮১ দশমিক ৬ শতাংশ।