নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও সরাতে নির্দেশনা চাইলেন আইনজীবী


169 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও সরাতে নির্দেশনা চাইলেন আইনজীবী
অক্টোবর ৫, ২০২০ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সরিয়ে ফেলতে বিটিআরসিকে নির্দেশনা দেওয়ার জন্য হাইকোর্টে আরজি জানিয়েছেন এক আইনজীবী।

সোমবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. মহি উদ্দিন শামীমের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে এই আরজি জানানো হয়। পরে আদালত মো. আবদুল্লাহ আল মামুন নামের ওই আইনজীবীকে লিখিত আবেদন দিতে বলেন।

আইনজীবী আবদুল্লাহ আল মামুন সাংবাদিকদের জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থাকা নির্যাতনের ভিডিও সরিয়ে ফেলতে নির্দেশনা চেয়ে আরজি জানানোর পর আদালত লিখিত আবেদন দিতে বলেছেন। এ বিষয়ে দুপুরের পর শুনানির জন্য সময় রেখেছেন আদালত।

গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করে একদল যুবক। ঘটনার এক মাস পর রোববার দুপুরে নির্যাতনের ওই ভিডিও কেউ একজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেন। মুহূর্তের মধ্যে তা ছড়িয়ে (ভাইরাল) পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশও তৎপর হয়ে ওঠে। পুলিশ জানতে পারে, স্থানীয় দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড বাদল এবং কর্মী রহিম, সুমনসহ পাঁচ-ছয়জন গৃহবধূর সঙ্গে এমন বর্বর আচরণ করেছে। পরে অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যায় আবদুর রহিম নামের একজনকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার নারী বাদী হয়ে রোববার রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৭-৮ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার আসামিরা হলেন- বাদল, মো. রহিম, আবুল কালাম, ইস্রাফিল হোসেন, সাজু, সামছুদ্দিন সুমন, আবদুর রব, আরিফ ও রহমত উল্যা। তাদের সবার বাড়ি বেগমগঞ্জে।

এই মামলায় এখন পর্যন্ত প্রধান আসামি বাদলসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।