নূরজাহান বেগমের মরদেহে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা


350 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নূরজাহান বেগমের মরদেহে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা
মে ২৩, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক:

সাপ্তাহিক ‘বেগম’ পত্রিকার সম্পাদক নূরজাহান বেগমের মরদেহে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ।

সোমবার বিকেল ৪টায় সর্বসাধারণের শ্রদ্ধার জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হয় নূরজাহান বেগমের মরদেহ। এখানে প্রায় ১ ঘণ্টা শ্রদ্ধা জনান নানা শ্রেণি পেশার মানুষ।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ জানান, বিকেল ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত সর্বস্তরে মানুষের শ্রদ্ধার জন্য নূরজাহান বেগমের মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হয়।

সোমবার সকালে নূরজাহান বেগম চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান।

এর আগে  দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে স্কয়ার হাসপাতাল থেকে নূরজাহান বেগমের মরদেহ তার বাড়ি নারিন্দায় নেওয়া হয়। সেখানে বাদ জোহর তার প্রথম জানাজা হয়।

নূরজাহান বেগমের ছোট মেয়ে রিনা ইয়াসমিন জানান, বাদ মাগরিব দ্বিতীয় জানাজা শেষে মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

নূরজাহান বেগম শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে ৪ মে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার চিকিৎসার সম্পূর্ণ দায়িত্ব নেন।

নূরজাহান বেগম উপমহাদেশের প্রথম নারীদের সাপ্তাহিক ‘বেগম’ পত্রিকার সম্পাদক। সাহিত্য ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে আনার লক্ষ্যে তিনি ১৯৪৭ সালের ২০ জুলাই কলকাতা থেকে পত্রিকাটি প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে ১৯৫০ সাল থেকে বেগম পত্রিকা ঢাকায় প্রকাশিত হতো।

নারী সাংবাদিক সাহিত্যিক নূরজাহান বেগম ১৯২৫ সালের ৪ জুন চাঁদপুর জেলার চালিতাতলী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি সওগাত পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ নাসিরুদ্দিনের কন্যা।

১৯৫২ সালে কচিকাঁচার মেলার প্রতিষ্ঠাতা রোকনুজ্জামান খান দাদা ভাইয়ের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

সাহিত্যিক ও সাংবাদিক নূরজাহান বেগম বাংলাদেশ মহিলা সমিতি, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, লেখিকা সংঘসহ বহু পদক ও সম্মাননা পেয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেগম পত্রিকার সম্পাদক নূরজাহান বেগমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।###