নোয়াখালীতে নারী-পুরুষকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, চিকিৎসক আটক


84 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
নোয়াখালীতে নারী-পুরুষকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, চিকিৎসক আটক
জুন ৭, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

নোয়াখালী সদর উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়নে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ এক নারী ও পুরুষকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে নির্যাতিত ওই নারী বাদী হয়ে গ্রাম্য চিকিৎসক জাফর আহমেদসহ আটজনের নামে থানায় মামলা করেন। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে লক্ষ্মীপুরের রামগতি থেকে জাফর আহম্মেদ নামে এক পল্লী চিকিৎসককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতার জাফর আহম্মেদ আন্ডারচর দেওয়ান বাড়ির তাজুল ইসলামের ছেলে।

নির্যাতিতা নারীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ফেনীর পদুয়া রাস্তার মাথার মকবুল ব্রিক ফিল্ডে রান্নার কাজ করার সময় শ্রমিক আব্দুল আলীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার। গত ২০মে বিষয়টি তার স্বামী জানতে পেরে বাড়ি থেকে চলে যান। পরে ২ জুন সারাদিন ওই নারীর মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় ৩ জুন ভোর ৪টায় প্রেমিক আব্দুল আলী তার বাড়িতে আসেন। ঘরে দু’জন বসে কথা বলার সময় জাফর আহম্মেদের নেতৃত্বে কয়েকজন তাদের বাড়ি ঘেরাও করেন। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে তাদের দু’জনকে বাইরে বের করে আব্দুল আলীকে বিদ্যুতের খুঁটির সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে জখম ও চুল কেটে মাথা ন্যাড়া করে দেন। এ সময় তাকেও লাঠি দিয়ে বেধম মারধর করেন জাফর। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, ঘটনায় ওই নারী বাদি হয়ে স্থানীয় চিকিৎসক জাফর আহম্মেদকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।