পশ্চিম সুন্দরবনে জোনাব বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড ও সহযোগি গ্রেফতার


332 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পশ্চিম সুন্দরবনে জোনাব বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড ও সহযোগি গ্রেফতার
জানুয়ারি ২০, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

মেহেদী হাসান মারুফ, শ্যামনগর :
সুন্দরবনের চিহ্নিত বনদস্যু জোনাব বাহিনীর গুলিবিদ্ধ সেকেন্ট ইন কমান্ড মুজিবর (৪৫) ও বাহিনীর সহযোগি মেম্বর আকবর মোড়ল (৫০) কে জনতা আটক করে শ্যামনগর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।

এ ঘটনার থানায় পুলিশ বাদী হয়ে বনদস্যু আইনে মামলা করেছে যার নং-২৪, তারিখ ২০ জানুয়ারী।

এলাকাবাসী জানান, গত বুধবার ভোরে বনদস্যু জোনাব বাহিনীর ৭/৮ জন সদস্য উপজেলার টেংরাখালী নামক লোকালয় আসে। এ সময় ঐ এলাকার মেম্বর আকবর আলী তাদের আশ্রয় দিয়ে গুলি বিদ্ধ মুজিবরকে রেখে বাকীদের বের করে দেয়।

এ ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার সকালে হরিনগর বাজার থেকে মুজিবর ও আকবর মেম্বরকে আটক করে থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে। আটক বনদস্যু মুজিবর পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া থানার গাজিপুর গ্রামের মফিজউদ্দীনের ছেলে।

ডাকাতের সহযোগি মুন্সীগঞ্জ ইউপি সদস্য ও উপজেলার টেংরাখালী গ্রামের মৃত রহিম গাজীর ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে থানায় নিয়মিত মামলা করেছে।

মেম্বর এর ভাই জানান, ভোর রাতে মুজিবর সহ ৬জন লোকালয়ে আসে। তাদের কে তার ভাই মেম্বর আটক করে। তারা হলো উপজেলার দাতিনাখালী গ্রামের আব্দুল গাজীর ছেলে সাদ্দাম (২৫) বড় ভেটখালী গ্রামের আনোয়ারা মোল্লার ছেলে মোজাম্মেল (৪০) মুন্সীগঞ্জ গ্রামের আক্তার মোড়লের ছেলে আল-আমিন (৫৫) পাতাখালী গ্রামের কোপাত গাজীর ছেলে ইসমাইল (৩৭) ও কয়রা উপজেলার ২নং কয়রা গ্রামের মৃত শহর আলীর ছেলে আইয়ুব (৩৫)।
মেম্বর গুলিবিদ্ধ মুজিবর কে আটক করে বাকীদের জিম্মি বলে ছেড়ে দেন। তিনি আরো জানান, সাদ্দাম ও ইসমাইল গুলিবিদ্ধ ছিল। আটক মুজিবর জানান, গত সোমবার রাত ১১টার সময় সুন্দরবনের তেরকাটি নামক স্থানে জোনাব ও আমির আলী বাহিনীর মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ হয়। এ সময় জোনাব বাহিনী ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে। তাদের অধিকাংশ সদস্য ও জিম্মিরা গুলি বিদ্ধ হয়েছে।