পাইকগাছায় কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত জনজীবন


951 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছায় কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত জনজীবন
আগস্ট ১৩, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম,আলাউদ্দিন সোহাগ পাইকগাছা :
পাইকগাছায় বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে টানা কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জন-জীবন। তলিয়ে গেছে পৌর সদরের নিচু এলাকা সহ নি¤œঞ্চালের বিস্তির্ণ এলাকা। সবজী ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সহ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন খেটে খাওয়া নি¤œ আয়ের মানুষেরা।
চলতি বর্ষা মৌসুসে বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে গত কয়েক দিনের বিরামহীন টানা ভারি বৃষ্টিপাতে পৌরসভার বান্দিকাটি, সরল, বাতিখালী, গোপালপুর সহ তলিয়ে গেছে ১০ ইউনিয়নের নি¤œাঞ্চল। বিরামহীন বৃষ্টিপাতের ফলে গত কয়েকদিনের মধ্যে দেখা মেলেনি সূর্যের আলো। একই সাথে বৃষ্টিপাতের ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে নি¤œ আয়ের মানুষেরা। কয়েকদিন কাজ না করতে পারায় পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকটাই দুর্ভোগে পড়েছেন দিন মজুর শ্রেণির লোকেরা। বান্দিকাটী গ্রামের ইউনুছ আলী গোলদার জানান, দিন মজুর কাজের উপর পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। অথচ ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে গত কয়েকদিন কোথাও কোন কাজ করতে পারেনি। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকটাই দুর্ভোগে রয়েছেন বলে তিনি জানান।
অপরদিকে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সবজী ফসলের জমিতে। অনুরুপভাবে প্রধান সড়ক সহ নিচু এলাকার অভ্যান্তরীন সড়কে পানি জমে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। পানি সরবরাহের খালে বাঁধ ও নেটপাটার ব্যবহার এবং পানি নিস্কাসন ব্যবস্থা সুগম না থাকায় কোথাও কোথাও সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। লোকজনের চলাফেরা কমে যাওয়ায় ব্যবসা বানিজ্যেও পড়েছে বিরুপ প্রভাব। স্কুল, কলেজ গুলোতেও উপস্থিতির হার কমে গেছে কয়েকগুন। সব মিলিয়েই কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে জন-জীবন।
##

ঘূর্ণিঝড় ও বৃষ্টিপাতে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি

এস,এম,আলাউদ্দিন সোহাগ পাইকগাছা (খুলনা) থেকে॥ পাইকগাছায় ভারী বৃষ্টিপাত ও ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতে পানিতে তলিয়ে গেছে বোয়ালিয়া বীজ উৎপাদন খামারের ৬১ একর আউশ ও আমন ধান। ভেসে গেছে হাজার হাজার বিঘা ঘেরের চিংড়ি ও মাছ। ধ্বসে পড়েছে অসংখ্যা কাচা ঘর-বাড়ি। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন বোয়ালিয়া বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালক কে, এম, আবুল কালাম জানান মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর হতে রাত ভোর ভারী বৃষ্টিপাতে বীজ উৎপাদন খামারের আউশ-বিআর-২৬, ১৪ একর, ব্রী-ধান-৫৫, ৬.একর, আমনের বি. আর-২৩, ১৮ একর, ব্রী-ধান ৪১, ২০ একর, নেরিকা মিউটেন্ড ৩ একর সহ ৬১ একর আউশ ও আমন ধান হাঁটু ও কোমর পানিতে তলিয়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়। উপ-সহকরী পরিচালক (খামার) মোঃ শহিদুল ইসলাম জানান হিতামপুর, মেলেকপুরাইকাটি, গোপালপুর, গদাইপুর ও পুরাইকাটি সহ এলাকার কয়েকটি গ্রামের পানি খামারের মধ্য দিয়ে নিস্কাশন হয়ে থাকে। মঙ্গলবার রাতের ভারী বর্ষণে ও এলাকার অতিরিক্ত পানিতে খামারের ৬১ একর আউশ ও আমন ধান তলিয়ে যায়। আমন ধান সবে মাত্র রোপন করা হলেও আউশের ফসলে কিছু কিছু ক্ষেত্রে পুরা থোর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। কিছু কাইচ থোর আবার দুধ আসা অবস্থায় রয়েছে। এক্ষেত্রে কয়েক ফুট পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় আউশ ও আমন ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে বিএডিসির এ কর্মকর্তা জানান। অনরুপভাবে পৌরসদর সহ ১০ ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড় ও বৃষ্টিপাতে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ছিল গোটা এলাকা।