পাইকগাছায় ঘুর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত অর্ধকিলোমিটার বেড়ি বাঁধ নির্মাণ


167 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছায় ঘুর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত অর্ধকিলোমিটার বেড়ি বাঁধ নির্মাণ
মে ২৯, ২০২০ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা (খুলনা) ॥
পাইকগাছার সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান আবারো সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে দেলুটি ইউপির গেওয়াবুনিয়া এলাকায় ঘুর্ণিঝড় আম্পানে লন্ড-ভন্ড হয়ে যাওয়া প্রায় অর্ধকিলোমিটার বেড়ি বাঁধ নির্মাণ করলেন। হাসি ফোটালেন এলাকার হাজার হাজার মানুষের। আনন্দে কেঁদে দিলেন অত্র ইউপি চেয়ারম্যান। সংবাদ পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান, নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন।
সরেজমিনে তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গত ২০ মে ঘুর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে দেলুটি ইউনিয়নের ২০ ও ২২নং পোল্ডার লন্ড-ভন্ড হয়ে যায়। বাঁধ ভেঙ্গে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে ঘর-বাড়ী, ফসলাদি নষ্ট করে দেয়। ২২নং পোল্ডার দেলুটি ইউপির ৯টি গ্রাম বেষ্টিত একটি ‘ব’ দ্বীপ। দ্বীপের কালিনগর নামক স্থানে ভাঙ্গন সৃষ্টি হলে এলাকা প্লাবিত হয়। ঘর-বাড়ি, গবাদি পশু ও কোটি কোটি টাকার ফসলাদি নষ্ট হয়ে যায়। এলাকাবাসী দুই-দুইবার বাঁধের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। এমন সময়ে পার্শ্ববর্তী সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান এস,এম, এনামুল হক এলাকার মানুষের দুঃখ-দূর্দশা ও মানবেতর জীবন যাপন সহ্য করতে না পেরে তিনি নিজেই উদ্যোগ উক্ত বাঁধ মেরামতের। গত ২৬ মে নিজ ইউনিয়ন হতে লোকজন নিয়ে বাঁধটি মেরামত করে দেন। তখনই একই ইউনিয়নের ২০নং পোল্ডারের পানিবন্দি লোকজনসহ ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডলের অনুরোধে বৃহস্পতিবার সকালে সোলাদানা ইউনিয়ন হতে ৬-৭শ লোকজন নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে গেওয়াবুনিয়া-মধুখালীর প্রায় অর্ধকিলোমিটার ভাঙ্গন কবলিত বেড়ি বাঁধের কাজ শুরু করেন। বিকাল ৩টা পর্যন্ত তিনি নিজে নেতৃত্ব দিয়ে ও দেলুটি ইউপি চেয়ারম্যানকে সঙ্গে নিয়ে বাঁধের কাজ সম্পন্ন করেন। বাঁধের কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর অত্র এলাকার হাজার হাজার নারী-পুরুষ চোখের পানি ফেলে উলুধ্বনির মাধ্যমে সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান এস,এম, এনামুল হককে ধন্যবাদ জানান। একই জায়গায় দেলুটি ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল বক্তব্য দিতে যেয়ে কেঁদে ফেলেন এবং স্নেহেস্পদ ছোট ভাই সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হকের ঋণ কখনও শোধ করতে পারবেন না বলে ব্যক্ত করেন। এ ঘটনা উপজেলা পরিষদে পৌছালে বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়না ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কাজ শেষে এনামুল নিজ হাতে শ্রমিকদের হাতে খাবার তুলে দেন। এছাড়া অত্র এলাকার পানিবন্দি ওয়াপদায় বসবাসরত লোকদের মাঝে খাদ্য বিতরন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য সুকুমার কবিরাজ, প্রীতিলতা রায়, সুকৃতি মন্ডল, মঙ্গল সরকার, দ্বিজেন্দ্রনাথ মন্ডল, আবুল হোসেন, গোলাম মোস্তফা, বিল্লাল হোসেন, কাইয়ুম হোসেন, কল্লোল মন্ডল প্রমুখ।

#

সন্তানকে অস্বীকার

পাইকগাছা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন মামলা প্রতারক স্বামী আটক

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় প্রতারণার মাধ্যমে বিয়ে করে সন্তানের পিতা হয়ে সন্তানকে অস্বীকার করায় প্রতারক লম্পটের বিরুদ্ধে পাইকগাছা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। পুলিশ প্রতারক লম্পটকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।
মামলা ও পুলিশের বিবরণে জানা যায়, পাইকগাছা পৌরসভার শেখ তৌহিদুল ইসলাম পাটকেলঘাটার নাসিমার সাথে মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। তৌহিদ পাইকগাছা পৌরসভার শেখ আনোয়ার হোসেনের ছেলে। নাসিমা পাটকেলঘাটার মানিকহার গ্রামের মোস্তফা সরদারের মেয়ে। প্রেমের এক পর্যায়ে কাউকে না জানিয়ে তারা ৫ জুলাই জনৈক এক হুজুরের মাধ্যমে কলেমা পড়ে বিয়ে করে। কয়েক মাস ঘর-সংসার করার পর নাসিমা অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পড়ে। এ সময় সে কাবিনের চাপ দেয়। তৌহিদ বিয়ের সম্পর্ক অস্বীকার করে ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। নাসিমা পিতার বাড়ীতে চলে যায় এবং ২৩ মার্চ ২০২০ তারিখে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়। সন্তানের কথা বলে স্বামী তৌহিদকে তার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বার বার অনুরোধ জানালে সে সন্তান ও বিয়ের কথা অস্বীকার করে। এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার পাইকগাছা থানায় নাসিমা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করলে পুলিশ তৌহিদকে আটক করে। ওসি এজাজ শফী জানান, বিয়ে ও সন্তান নিয়ে করা মামলায় তৌহিদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শিশু ও তৌহিদের ডিএনএ টেস্ট করার জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে।

#

পাইকগাছায় ছিনতাইকারী আটক : টাকা উদ্ধার

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
খুলনার পাইকগাছায় টাকা ছিনতাই করে পালানোর সময় ছিনতাইকারীকে জনতা আটক করে পুলিশে দিয়েছে। পুলিশ আটক ছিনতাইকারী হোসেন গাজীকে হেফাজতে নিয়ে তার কাছ থেকে ছিনতাই করা ৯ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, উপজেলার কাটিপাড়া গ্রামের তাছের গাজীর ছেলে হোসেন গাজী বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ি থেকে পাইকগাছায় যাচ্ছিল। বোয়ালিয়া ব্রীজের পূর্বপাশে জনৈক সবুরের বাড়ীর সামনে পৌছালে পাশে ওৎপেতে থাকা রাড়–লীর বাইটপাড়া গ্রামের আজিজ সরদারের ছেলে সাগর সরদার তার মটরসাইকেল আটকায়। এসময় তার বুকের কাছে চাকু ধরে বলে, তোর কাছে যা আছে দিয়ে দে। হোসেনের পকেটে থাকা ৯ হাজার টাকা ছিনতাই করে সে দ্রুত চলে যেতে থাকে। এ সময় সে চিৎকার দিলে পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে সাগরকে ধরে ফেলে পুলিশে সংবাদ দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এসময় পুলিশ তার কাছ থেকে উক্ত টাকা উদ্ধার করে। ওসি এজাজ শফী জানান, ধৃত সাগর একজন ছিনতাইকারী। তাকে আটক করে ছিনতাইকৃত টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। ছিনতাই মামলায় তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

#

পাইকগাছায় মুক্তিযোদ্ধা সংঘের সম্পত্তি দখল করতে যেয়ে ভুমিদস্যু আটক

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
খুলনার পাইকগাছায় মুক্তিযোদ্ধা সংঘের ভুমিদস্যু মাওলা সরদারকে আটক করেছে থানাপুলিশ এঘটনায় পুলিশ তাকে আদালত মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার মৌখালীতে ১৯৭২ সালে ৩শতক জমির উপর শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ আজিজ সংঘ প্রতিষ্ঠিত। সে থেকে সুনামের সাথে চলছে তার কার্যক্রম চলে আসছে। এর মধ্যে স্থানীয় ভুমিদস্যু মাওলা সরদার সংঘের সম্পত্তি জবর দখল করে স্থাপনা করার অভিযাগ পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার এ কাজে বাঁধা দেয়ায় প্রতিষ্ঠানের সভাপতি আব্দুল হাই মিন্টু মোল্যাসহ কমিটির লোকদের মারপিট করতে উদ্যত হয়। সভাপতি মিন্টু মোল্যা বাদী হয়ে থানায় জিডি করেন। পুলিশ আদালতের অনুমতি নিয়ে শুক্রবার তদন্ত করতে গেলে মাওলা সরদারকে দেশি অস্ত্র নিয়ে জমি দখল করতে আসে বলে পুলিশ জানায়। এসময় মাওলা সরদারকে আটক করা হয়। থানায় মামলা হয়েছে। ওসি এজাজ শফী জানান, মুক্তিযোদ্ধা সংঘের সম্পত্তি জবর দখল করার অভিযোগে মাওলা সরদারকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।