পাইকগাছায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা : আট মামলায় হাজারও আসামী, নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ


367 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা : আট মামলায় হাজারও আসামী, নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ
মার্চ ২৮, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি :
খুলনার পাইকগাছায় সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন স্থানে বিজয়ী ও পরাজিত আ’লীগ বি.এন.পি, বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষ, অগ্নিসংযোজ, ভাংচুর ও পুলিশের ফাঁকা গুলি বর্ষণের ঘটনা সহ বিভিন্ন অভিযোগে থানায় দায়ের করা ৮ মামলায় হাজারও মানুষ আসামী। গ্রেফতার আতঙ্কে ভুগছে অনকেই। জেল হাজতে ১০। প্রধান নির্বাচন কমিশন বরাবর পুন: ভোট গ্রহন ও গননার দাবীতে অভিযোগ। থানা পুলিশ ও সরেজমিনে জানা গেছে ২২ মার্চ অনুষ্ঠেয় ইউপি নির্বাচনে উপজেলার ১০ ইউপি হরিঢালী, সোলাদানা, চাঁদখালী, দেলুটী সহ বিভিণœ স্থানে বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থী কর্মী সমর্থকদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৫ ব্যক্তি আহত হয়েছেন। দেলুটী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে বেআইনী জনতার হাঙ্গামা ও বিশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে পুলিশের ৪ রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষণের ঘটনায় সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তা এফ,এম, সেলিম আক্তার থানায় অজ্ঞাতানামা ৫’শ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করায় সম্পূর্ন সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায় অধ্যুষিত এলাকার মানুষ গ্রেফতার আতঙ্কে ভুগছে বলে জানা গেছে। দেলুটী সহ ৩টি ভোট কেন্দ্রে পুন: ভোট গ্রহণের দাবী করে গতকাল প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর অভিযোগের কথা জানিয়ে এ ইউপির বিদ্রোহী আ’লীগ প্রাথী দ্বিজেন মন্ডল অভিযোগ করেন। ভোট চলাকালে দুপুরে মধুখালী, গেউয়াবুনিয়া ও দেলুটী ভোট কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রিপন মন্ডল ও তার বাহিনী লাঠি সোটা নিয়ে হামলা চালিয়ে বুথ দখল করে সকলকে জিম্মি করে ব্যালট পেপার কেড়ে নিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মেরে ভোট ডাকাতি করেও তাকে ৫১৪ ভোটে হারানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। অপর দিকে চাঁদখালীতে ফলাফল ঘোষনার পর বি.এন.পির বিজয়ী চেয়ারম্যান জোয়ার্দ্দার রসুল বাবু’র কর্মী সমর্থকরা পরাজিত আ’লীগ প্রাথী ও ইউপি চেয়ারম্যান মুনছুর আলী গাজীর বাড়ীতে হামলা ও চাঁদখালীস্থ দলীয় কার্যালয়ে অগ্নি সংযোগ করে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় স্থানীয় আ’লীগ নেতা হায়দার সরদার জোয়ার্দ্দার রসুল বাবু সহ ১’শ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। অভিযোগ উঠেছে বাবু বীর দর্পে নির্বাচনী এলাকায় কর্মী সমর্থকদের বাড়ীতে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এখানে কোন গ্রেফতার নেই বলে পুলিশ জানিয়েছে। হরিঢালীতে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রাথী ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাফর সিদ্দিকী রাজু ও আ’লীগের বিদ্রোহী পরাজিত প্রার্থী সরদার গোলাম মোস্তফা কর্মী সমর্থকদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষে ১০ জন আহত সহ গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় একে অপর সহ প্রায় ১’শ জনের বিরুদ্ধে থানায় পাল্টা পাল্টি মামলা হয়েছে। চেয়ারম্যান রাজু অভিযোগ করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তফা বহিরাগত সন্ত্রাসীদের হামলায় একাধিক কর্মী আহত সহ তার ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কার ও ৫ টি মোটর সাইকেল ভাংচুর চালিয়ে অগ্নি সংযোগ করে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করেছেন। সোলাদানায় বিজয়ী বি.এন.পি’র চেয়ারম্যান এস,এম,এনামুল হক ও পরাজিত আ’লীগ প্রাথী আব্দুল মান্নান গাজীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে একাধিক মারপিটের ঘটনায় ৭ জন আহত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এখানেও একে অপরের কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে পাল্টা পাল্টি মামলা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে একথা জানিয়ে ওসি আশরাফ হোসেন বলেন, বিভিন্ন মামলায় এ পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
##

ইউপি নির্বাচন : পাইকগাছায় তিন গ্রামের সংখ্যা লঘু সম্প্রদায়ের মানুষ ভীত সন্ত্রস্ত

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচনে লস্করের লক্ষ্মীখোলস্থ ৩ নং ওয়ার্ডের পরাজিত সদস্য প্রার্থী আ’লীগ নেতার ছেলে মঞ্জুরুল মোল্যা তার বল প্রতীকে ভোট না দেওয়ার অভিযোগে হেতালবুনিয়ার চিত্ত রঞ্জন (৫২) কে ঘাড় ধাক্কা ও গালিগালাজ সহ অনেককে হুমকি ও লাঞ্চিত করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। একের পর এক প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিজয়ী সদস্য তাজউদ্দিন সহ তার কর্মী সমর্থকদের প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকি অব্যাহত রেখেছে। নির্বাচনের পরে হেতালবুনিয়া, কেওড়াতলা ও স্মরণখালী এলাকার সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ জিম্মি হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে, শনিবার বিকালে সরেজমিনে গেলে এ সম্প্রদায়ের মানুষ উল্লেখ করেছেন তারা ভয়ে সরাসরি লক্ষ্মীখোলার উপর দিয়ে না গিয়ে ভিন্ন পথে চিংড়ি ঘেরের রাস্তা দিয়ে পাইকগাছা সদরে আসা যাওয়া করছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী কেওড়তলা মন্দির প্রাঙ্গনে জড়ো হয়ে করণীয় বিষয় নিয়ে আলোচনায় মিলিত হন। এ সভা থেকে জানানো হয়েছে নির্বাচিত হয়ে শুক্রবার ইউপি চেয়ারম্যান কে,এম,আরিফুজ্জামান তুহিন ও সদস্য তাজউদ্দীন এলাকায আসলে এ সময় মঞ্জুরুল সমর্থিত পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পা ভেঙ্গে দেওয়া হবে বলে তাজ উদ্দিন স্বয়ং জানিয়েছেন। উল্লেখ্য মঞ্জুরুল লক্ষ্মীখোলার আ’লীগ নেতা আফছার মোল্যার ছেলে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ওসি আশরাফ হোসেন জানিয়েছেন, অভিযোগ না হলেও এবিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন।