পাইকগাছায় সংরক্ষণশীল কৃষির উপর কৃষক প্রশিক্ষণ


307 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছায় সংরক্ষণশীল কৃষির উপর কৃষক প্রশিক্ষণ
মার্চ ১, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা (খুলনা) ॥
খুলনার পাইকগাছায় কৃষিতে নতুন মাত্রা হিসেবে সংরক্ষণশীল কৃষির উপর কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার বিরাশি গ্রামে রফিকুল ইসলামের বাড়ীতে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে সিসা-এমআই প্রকল্প, আন্তর্জাতিক ভুট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র (সিমিট) যশোর হাব এর আয়োজনে জাগরণীচক্র ফাউন্ডেশন উদ্যোগে প্রশিক্ষণটি অনুষ্টিত হয়।

দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কৃষকদের মাঝে বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন উপজেলা কৃষি অফিসার এ,এইচ,এম, জাহাঙ্গীর আলম। সিসা-এমআই(সিমিট) যশোর হাব এর মেশিনারী ডেভলপমেন্ট অফিসার আকতারুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী কৃষি অফিসার অরুণ কুমার পাল, সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন জেসিএফ এর রেহানুরজ্জামান। কর্মশালায় ইউনিয়নের ২০জন চাষীকে গম ও ভুট্টা চাষে আধুনিক প্রযুক্তি ও উন্নত পদ্ধতি ব্যবহারের মাধ্যমে অধিক ফলন লাভের উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এছাড়া বিষয় ভিত্তিক বিশেষজ্ঞগণ উল্লেখিত শস্য চাষের শুরু থেকে ফসল তুলে সংরক্ষণ ও বাজারজাতকরণ পর্যন্ত বিভিন্ন ধাপে চাষীদের করণীয় নিয়ে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বিস্তারিত প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়। প্রকল্পের এএমডিও আকতারুল ইসলাম বলেন, সংরক্ষণশীল কৃষির জন্য পরবর্তী ফসল সংগ্রহের সময় জমিতে ৮-১০ ইঞ্চি নাড়া রেখে পাওয়ার টিলারের সাথে সিডার সংযুক্ত করে একইসাথে সরুলাইনে জমি চাষ ও বীজ বপন করা যায়। এর ফলে জমিতে জৈব পদার্থ যোগ হয়, মাটির পানি ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এবং লবনাক্ততা কমে। এই পদ্ধতিতে ধান, গম, ভুট্টা, ডাল শস্য এমনকি পাটও চাষ করা যায়, ফলন ১৫% বৃদ্ধি পায় এবং উৎপাদন খরচও ৬০% কমে যাবে। এ চাষ পদ্ধতিতে কম খরচে কম সময়ে মাটির স্বাস্থ্য রক্ষা ও উর্বতা বৃদ্ধিসহ লাভজনকভাবে ফসল উৎপাদিত হয়। দ্বিতীয় পর্বে কৃষকদেরকে মাঠে নিয়ে পরিদর্শন শেষে তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের আলোকে সরজমিনে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।