পাইকগাছায় হনুমানকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় আদালতে মামলা


430 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছায় হনুমানকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় আদালতে মামলা
জুলাই ২৪, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এসএম আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা :
পাইকগাছায় হনুমানকে কুপিয়ে জখম করার আলোচিত সেই ঘটনায় অবশেষে আদালতে মামলা হয়েছে। রোববার সকালে স্বপ্রনোদিত হয়ে পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. জিএম আব্দুস সাত্তার।

মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেলে জরুরী ভিত্তিতে আসামীদের আইনের আওতায় আনার নিমিত্তে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অফিসার ইনচার্জ পাইকগাছা থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট গাজী জামশেদুল হক।

উল্লেখ্য, খাদ্যাভাবে কেশবপুরের দলছুট কিছু সংখ্যক কালোমুখো হনুমান বেশকিছুদিন আগে থেকে পাইকগাছার বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান করছে। অবস্থানরত হনুমানগুলোর মধ্যে কে বা কাহারা একটি হনুমানকে গত ৬ জুলাই সকালে কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয় বাস শ্রমিকরা আহত হনুমানটিকে উদ্ধার করে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করায়। উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসের ভিএফএ এসএম কামরুল আবেদিন জানান-হনুমানটির পেটের কাছে ও কোমরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়। দু’টি স্থানে প্রায় ৪ ইঞ্চি গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। এরপর আহত হনুমানটি গত ২০ ও ২১ জুলাই বিচারের দাবীতে আদালতের সামনে গিয়ে অবস্থান নিলে আদালতের আইনজীবীসহ সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়ে। বিষয়টি পরেরদিন ভয়েস অব সাতক্ষীরাসহ বিভিন্ন গনমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হয়।

সবশেষে রোববার সকালে আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. জিএম আব্দুস সাত্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। মামলাটি পরিচালনা করছেন আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আবুল কালাম আজাদ। মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসের ডিএফও এবং সাংবাদিক মোঃ আব্দুল আজিজকে।

স্থানীয়রা জানায়, আহত হুনুমানটি এখনও বিচার পাওয়ার আশায় আদালত এলাকায় ঘুরাফেরা করছে।