পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের জরাজীর্ণ সীমানা প্রাচীর : নিরাপত্তা ঝুকিতে পরিষদের অভ্যন্তরীণ এলাকা


341 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের জরাজীর্ণ সীমানা প্রাচীর : নিরাপত্তা ঝুকিতে পরিষদের অভ্যন্তরীণ এলাকা
এপ্রিল ২৯, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে উপজেলা পরিষদের সীমানা প্রাচীর। ফলে চুরিসহ নিরাপত্তা জনিত ঝুকিতে রয়েছে গোটা উপজেলা পরিষদ এলাকা। জরাজীর্ণ সীমানা প্রাচীর সংস্কারসহ ঝুকিমুক্ত সীমানা প্রাচীর নির্মাণ জরুরী হয়ে পড়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ।
উল্লেখ্য, বর্তমান উপজেলা পরিষদের সামনে ১৯৭৫ সালে নির্মিত সীমানা প্রাচীরটি দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। কোথাও কোথাও গ্রীল নাই, কোথাও ধ্বসে পড়েছে ইটের ওয়াল। বিশেষ করে, উপজেলা পরিষদের সামনের কয়েক মিটার লোহার গ্রীল নাই। শহীদ এম,এ গফুর মিলনায়তনের সামনে নিচু পাকা ওয়াল থাকলেও ওয়ালের উপরে কোন গ্রীল নাই। পুরাতন পরিবার পরিকল্পনা অফিসের সামনে প্রাচীরটি প্রায় সম্পূর্ণ ধ্বসে পড়েছে। আবার পুরাতন খাদ্য গুদাম এলাকায় কোন প্রাচীর নাই। এভাবেই উপজেলা পরিষদের চারি পাশে কোথাও কোথাও সীমানা প্রাচীর না থাকায় এবং কোথাও কোথাও জরাজীর্ণ সীমানা প্রাচীরের কারণে ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে উপজেলা পরিষদ এলাকা। ইতোমধ্যে, উপজেলা ভূমি অফিসসহ কয়েকটি দপ্তরে একাধিক চুরির ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া এলাকার বখাটে ছেলেরা প্রতিনিয়ত অনায়াসে পরিষদ এলাকায় প্রবেশ করে। এতে স্বাভাবিক পরিবেশ ব্যাহত সহ বড় ধরণের অপরাধমূলক কর্মকান্ডের ঘটনা ঘটার আশংকা দেখা দেয়। এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ স.ম. বাবর আলী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবুল আমিন জানান, পরিষদের সামনের প্রাচীরটি অনেক পুরাতন এবং ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে ইতোমধ্যে পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় নতুন প্রাচীর নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পরিষদের উপদেষ্টা এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক জানান, পরিষদের সীমানা প্রচীর নির্মাণসহ বেশ কিছু ভবন নির্মাণ ও সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে ডি.ও লেটার দেয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।