পাইকগাছা উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের বেহাল অবস্থা


737 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের বেহাল অবস্থা
মে ২৮, ২০১৮ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা ::
খুলনার পাইকগাছা উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়টি বর্তমানে এক প্রকার পরিত্যাক্ত একটি কক্ষ হিসেবে পড়ে রয়েছে। মাসের পর মাস কার্যালয়টি চালু না থাকায় তা অব্যবহৃত অবস্থায় থাকতে থাকতে পিছনের কাঠের দরজা-জানালা ও আলমারীটিও ভেঙে পড়েছে। যত্রতত্র পড়েছে কাগজপত্র। যা ময়লা আবর্জনায় ভরপুর। অফিস রুমের ভিতরে ফাঁকা। সামনের দরজায় তালা। পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্রস্থ কপোতাক্ষ মার্কেটের তৃতীয় তলায় উপজেলা বিএনপির প্রধান এ কার্যালয়টি অবস্থিত।
সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর সংসদ নির্বাচনের পর দলীয় কোন্দল বৃদ্ধি ও প্রসাশনিক ধরপাকড়ের কারণে দলীয় নেতাকর্মীদের কার্যালয়ে আসা ধীরে ধীরে কমতে থাকে। আর প্রায় দু’বছর আগে থেকে পুলিশী গ্রেফতার এড়াতে একেবারেই দলীয় কার্যালয়ের পাশে ভীড়তে পারছে না নেতাকর্মীরা। উপজেলা বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের অনুপস্থিতির কারণে দেখভালের অভাবে দলীয় কার্যালয়টির বেহাল অবস্থা দেখা দিয়েছে। কার্যালয়ের ভিতরে চেয়ারম্যান, টেবিল, আসবাবপত্র কিছুই নেই। এ প্রসঙ্গে বিএনপি নেতা আসলাম পারভেজ আক্ষেপের সাথে বলেন, দলের ভিতরে গ্রুপিং ও পুলিশী হয়রানীর কারণে প্রায় দু’বছর আগে থেকেই নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে আসা-যাওয়া এক প্রকার বন্ধ করে দিয়েছে। উপজেলা বিএনপি সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি আহবায়ক ডাঃ আব্দুল মজিদ বলেন, অফিস রুমের চাবিটা হারিয়ে গিয়েছিল, যা পরে পাওয়া গেছে এবং অর্থ সংকট রয়েছে। তিনি বলেন, খুব শিগ্রই দরজা মেরামতসহ গোটা অফিসের সংস্কার করা হবে। উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আবু সাঈদ বলেন, অযোগ্য, অদক্ষ লোকের কাছে নেতৃত্ব দিলে যা হওয়ার তাই হয়েছে। শুধু কার্যালয় কেন, দলেরও অবস্থা একইরূপ হয়েছে। ২০১৬ সালের ফেব্র“য়ারিতে ৩ মাসের জন্য সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক হন ডাঃ আব্দুল মজিদ। এদিকে গত শুক্রবার সকালে উপজেলা বিএনপি কার্যালয় ফাঁকা পেয়ে ইফতার তৈরীর জন্য জনৈক বাবুর্চি ওই কক্ষের ভিতরে হাঁড়ি-পাতিল নিয়ে রান্নার কাজ শুরু করেন। বিষয়টি বিএনপির এক কর্মী দেখে স্থানীয় নেতৃবৃন্দকে জানালে পরক্ষণে সেগুলি বের করে নেওয়া হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শী মিজানুর রহমান জানিয়েছেন।