পাইকগাছা সংবাদ ॥ গাড়ী ঘোরানোকে কেন্দ্র করে মারপিট ও ভাংচুর : আহত ৬ শ্রমিক


357 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা সংবাদ ॥ গাড়ী ঘোরানোকে কেন্দ্র করে মারপিট ও ভাংচুর : আহত ৬ শ্রমিক
সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা :
খুলনার পাইকগাছায় গাড়ী ঘোরানোকে কেন্দ্র করে চায়ের দোকানদার ও শ্রমিকদের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ৬ বাস শ্রমিক আহত হয়েছে। প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধু শ্রমিকরা আধা ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চায়ের দোকানদারসহ ২জনকে আটক করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন জিরো পয়েন্ট ও শিববাটী ব্রীজ সংলগ্ন সড়কের পাশে গাড়ী ঘোরানোর এক খন্ড সরকারী জায়গা রয়েছে। উক্ত জায়গার পাশের চায়ের দোকানদার মোশাররফ হোসেন উক্ত স্থানে গাড়ী ঘোরানো নিষেধ করে বাঁশ দিয়ে বেরিকেট দিয়ে রাখে। ঘটনার দিন রোববার দুপুর ১২টার দিকে খুলনা মেট্টো-ব-৮০৩২ নং বাসের চালক মুনির হোসেন বাসটি ঐ জায়গার উপর দিয়ে ঘোরানোর চেষ্টা করলে চায়ের দোকানদার মোশাররফের সাথে সুপারভাইজার শেখ কফিলউদ্দীনের বাকবিতন্ডা হয়।
কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মোশাররফ সুপার ভাইজার মারপিট করলে পরবর্তীতে শ্রমিকনেতা শেখ মিথুন মধু, আব্দুল জব্বার বাবলু ও জাহিদুল ইসলামসহ অন্যান্য শ্রমিকরা ঘটনাস্থলে গেলে মোশাররফ ও তার পরিবারের অন্যান্য লোকজন শ্রমিকদের উপর চড়াও হয়। এসময় মারপিটের শিকার হয়ে ৬ শ্রমিক আহত হয় এবং দোকানের কিছু বেঞ্চ, টেবিল ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।
আহত শ্রমিকরা হলো- শেখ মিথুন মধু (৪০), শেখ ডাবলু (৪৫), সিরাজুল ইসলাম (৩৬), শহিদুল গাজী (৩৫), শেখ কফিলউদ্দীন (২৮) ও শাহিন আলম (৩০)। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে রাখলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মোশাররফসহ ২জনকে আটক করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।
পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীরসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বিষয়টি নিরসনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে এবং এ নিয়ে আর যাতে কোন সংঘাত-সংঘর্ষ না ঘটে এ জন্য পুলিশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বলে ওসি আশরাফ হোসেন জানান।
##

পাইকগাছায় পৃথক অভিযানে আটক ৯
পাইকগাছা প্রতিনিধি :
পাইকগাছায় গাঁজা সেবন ও চুরির অভিযোগে পৃথক অভিযান চালিয়ে থানা পুলিশ ৯ ব্যক্তিকে আটক করেছে। থানা পুলিশের এস,আই বিশ্বজিত অধিকারী, এস,আই আব্দুল মান্নান ও এএসআই আশিক রোববার পৃথক অভিযান চালিয়ে চুরির অভিযোগে বিরাশি গ্রামের মৃত আনসার গাজীর ছেলে মোমিন গাজী (২০), লক্ষ্মীখোলা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (২২), গোপালপুর গ্রামের আমজাদ সানার ছেলে আসাদুল সানা (২৬) এবং গাঁজাসহ বাতিখালী গ্রামের শাহিনুরের ছেলে সাকিবুর রহমান (২৮), নাঈমের ছেলে নাফিউর রহমান (২৫), পাতড়াবুনিয়া গ্রামের মেছের আলী সরদারের ছেলে বজলু সরদার, বান্দিকাটি গ্রামের আমজাদ গাজীর ছেলে এরশাদ গাজী (২২), ঘোষাল গ্রামের হাসেম সরদারের ছেলে শাহিনুর সরদার (২৫) ও চেঁচুয়া গ্রামের মৃত মাজেদ মালের ছেলের মফিজুর রহমান মাল (২৩) কে আটক করে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে জেল-জরিমানা ও মামলা হয়েছে বলে ওসি আশরাফ হোসেন জানান।