পাইকগাছা সংবাদ ॥ পেশি শক্তির কাছে ঘের ও জমির মালিকরা দিশেহারা


104 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা সংবাদ ॥ পেশি শক্তির কাছে ঘের ও জমির মালিকরা দিশেহারা
জুলাই ১৭, ২০১৯ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ ::

খুলনার পাইকগাছায় বৈধ কাগজপত্র থাকলেও পেশি শক্তির কাছে চিংড়ি ঘের ও সম্পত্তি টিকিয়ে রাখতে দিশেহারা চিংড়ি চাষী, জমির মালিক ও ডিসিআর ক্রেতারা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে প্রকাশ, পাইকগাছা উপজেলার হিতামপুর ও পার্শ্ববর্তী উপজেলার তালা সীমান্ত এলাকায় খেশরা মৌজা অবস্থিত। এ মৌজায় কামরুল ইসলাম মোড়লের ৯৫১/৯৫২ ও ৯৫১/৯৫৩ খতিয়ানের ২ একর এবং খেশরা মৌজায় ২ বিঘা জমি অন্যের কাছ থেকে হারী মুলে চুক্তিপত্র গ্রহণ করেন। এছাড়া একই মৌজায় কওসার মোড়লের কাছ থেকে আরো ২ একর জমি ডিড নিয়ে সে চিংড়ি চাষ করে আসছে। একই মৌজায় মান্নান গাজীদের ৯৫১/৯৫৪ খতিয়ানে ১ একর সম্পত্তি। পৃথক পৃথক জমির মালিকগণ জমি ভোগ দখল করলেও মান্নান গাজী নির্দিষ্ট জায়গায় ভোগ দখল না করে কামরুল মোড়লের উক্ত খতিয়ানের জমি জবর দখলের জন্য কামরুল মোড়ল, কওসার মোড়ল ও আকবার মোড়লদের বিরুদ্ধে নানাভাবে হয়রানী করছে বলে অভিযোগে জানা যায়। আকবার মোড়ল জানান, কমপক্ষে ৩বার নিজেদের চিংড়ি ঘেরের বাসা পুড়িয়ে তাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। সরকারিভাবে সার্ভেয়ার নিয়োগ করে যার যার জমি মেপে দিলে বিষয়টি নিস্পত্তি হওয়া সম্ভব। এদিকে, খেশরা মৌজায় ১৬ একর সম্পত্তি ৩২ হাজার টাকা রাজস্ব দিয়ে ডিসিআর ক্রয় করে আরজউল্লাহ মোড়ল, কওসার মোড়ল, নিজাম উদ্দীন বিশ্বাস, জমির আলী শেখ। যার নং- ২৭ (২০১৮-১৯), বই নং- ১১৩৪৪৭। সরকারি রাজস্ব দিয়ে ডিসিআর ক্রয় করলেও ডিসিআর হোল্ডাররা পেশি শক্তির কাছে পরাস্থ হচ্ছে বলে কওসার আলী মোড়ল জানায়। এ ব্যাপারে মান্নান গাজী জানায়, তারা তাদের ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে ধান ও চিংড়ি চাষ করছে।

#

পাইকগাছায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ ::

খুলনার পাইকগাছায় মৎস্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পেশ করেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইউএনও জুলিয়া সুকায়না। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট, পাইকগাছার মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ লতিফুল ইসলাম, উর্দ্ধতম বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা দেবাশীষ কুমার মন্ডল, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মোল্লা এনএস মামুন সিদ্দিকী, মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ শহিদুল্লাহ।

#