পাইকগাছা সংবাদ ॥ ব্যবসায়ীর বাড়ীতে দুধর্ষ ডাকাতি


377 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা সংবাদ ॥ ব্যবসায়ীর বাড়ীতে দুধর্ষ ডাকাতি
জানুয়ারি ১৩, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস, এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা :
পাইকগাছায় এক ব্যবসায়ীর বাড়ীতে দুধর্ষ ডাকাতি সংঘঠিত হয়েছে। সঙ্গবদ্ধ ডাকাত দল বাড়ীর লোকদের বেঁধে রেখে নগদ অর্থ, স্বর্ণ অলংকার ও অন্যান্য মালামাল লুট করে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ সন্দেহ জনক ৩ যুবক কে আটক করেছে। পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে গোপালপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, ঘটনারদিন গভীর রাতে ১০/১২ জন মুখোশধারী ডাকাত গদাইপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের মৃত কার্তিক চন্দ্র ঘোষের ছেলে ঔষধ ব্যবসায়ী অশোক কুমার ঘোষের বাড়ীতে হানাদেয়। এসময় পরিবারের সবাই ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় ৭/৮ জন ডাকাত দলের সদস্য প্রথমে বাড়ীর বারান্দার গ্রিলের তালা ভেঙ্গে ঘরের ভীতরে প্রবেশ করে অশোকের দু’ছেলে সুমিত ও সুমন এবং দোকানের কর্মচারী আনন্দকে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে লুটপাট শুরু করে।

এক পর্যায়ে সুমন ডাকাত ডাকাত বলে আত্মচিৎকার দিলে পাশের ঘরে থাকা সুমনের কাঁকা অসিম ঘোষ বিষয়টি আচ করতে পেরে বাহিরে বেরিয়ে আসলে বাহিরে অবস্থান নেওয়া বাকি ডাকাতরা তাকে হত্যা করার হুমকি দিলে তাৎক্ষনিক ভাবে আবার ঘরের ভীতরে গিয়ে স্থানীয় আ’লীগনেতা গাজী নজরুল ইসলামের মাধ্যমে থানা পুলিশকে খবর দেয়।
পরে ওসি আশরাফ হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছানোর পূর্বেই ডাকাতরা নগদ ৭/৮ হাজার টাকা ১ ভরি স্বর্ণালংকার ৩টি মোবাইল সহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সন্দেহ জনক আসাদ, মামুন ও আসাদুল নামে এলাকার ৩ যুবককে আটক করে। খবর পেয়ে সকালে পুলিশের এএসপি সার্কেল (দাকোপ) কাদের বেগ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এঘটনায় অশোকের ছেলে সুমিত ঘোষ বাদি হয়ে অজ্ঞাত ১০/১২ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করেছে বলে ওসি আশরাফ হোসেন জানান।
##
পাইকগাছায় ডাক্তারদের কর্মবিরতি পালন
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি :
পাইকগাছায় কর্মবিরতি কর্মসূচী অব্যহত রেখেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা-কর্মচারী। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে প্রতিদিন ২ঘন্টা করে কর্মবিরতি পালন করছে আন্দোলনরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

এদিকে টানা কয়েকদিনের কর্মবিরতির ফলে ব্যাহত হচ্ছে সেবা কার্যক্রম।

বুধবারও হাসপাতালের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কর্মস্থল ছেড়ে বাহিরে অবস্থান নেয়। এসময় সকলের কক্ষে তালাবদ্ধ থাকায় সেবা নিতে এসে বিপাকে পড়েন সাধারণ মানুষ।
সোলাদানার কুলছুম বেগম জানান, এমনিতেই শীতের সময় সকালে বাড়ীর থেকে বের হওয়া যায়না। আবার হাসপাতালে আসলেও সকালে ডাক্তারদের নাগাল পাওয়া যায়না।

এরপর সব ডাক্তাররা মিলে পালন করেন কর্মবিরতি। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই সেবা থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে আমাদের মতন সাধারণ মানুষদের। ৭দফা দাবী সম্বলিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে প্রতিদিন ২ঘন্টা করে কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা জানান।
##
পাইকগাছায় তথ্য বিনিময় সভা
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি :
পাইকগাছায় মাঠ পর্যায়ে চাষাবাদে আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির প্রয়োগ, ফলাফল পর্যালোচনা ও প্রসারের লক্ষে তথ্য বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউএসএইডি অর্থায়নে বুধবার সকালে সিমিট হাবের মেশিনারী ডেভেলপমেন্ট অফিসার আকতারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা কৃষি অফিসার এএইচএম জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, এগ্রিকালচার ডেভেলপমেন্ট অফিসার আশরাফুল আলম, আইডিই ইকরাম হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, টেকনিক্যাল ফ্যাসিলিটেটর রাহানুরজ্জামান আজাদ।