পাইকগাছা সংবাদ ॥ যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৫তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত


323 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা সংবাদ ॥ যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৫তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত
মার্চ ২৭, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥ পাইকগাছায় যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৫তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শনিবার প্রত্যুষে স্মৃতি সৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, থানা প্রশাসন, পৌর পরিষদ, আওয়ামীলীগ, জাকের পার্টি, কমিউনিস্ট পার্টি, যুবলীগ, কৃষক লীগ, পাইকগাছা কলেজ, ফসিয়ার রহমান মহিলা কলেজ, সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, আইনজীবী সমিতি, বনানী সংঘ, মুক্তিযুদ্ধের শহীদ স্মৃতি পাঠাগার, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ, মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পাইকগাছা সিনিয়র মাদ্রাসা, ষোলআনা ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি, দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি, চিৎড়ি বিপনন সমবায় সমিতি সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সংগঠনের পক্ষথেকে স্মৃতি সৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, রোভার, বাংলাদেশ স্কাউটস্, গার্লস গাইড ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শন করেন। সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে শিশুদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাড়ে ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা, বিকাল সাড়ে ৪টায় সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা প্রশাসন একাদশ বনাম, পৌরসভা একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা ও সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মহিলাদের ক্রীড়া অনুষ্ঠান, বিকাল ৫টায় শহীদ মিনার চত্ত্বরে উপকূল সাহিত্য পরিষদের বই মেলার অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আলোচনা সভা, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে সুখি ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার র্শীষক আলোচনা সভা এবং একই স্থানে সবশেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবুল আমিনের সভাপতিত্বে সমগ্র অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নূরুল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ স ম বাবর আলী, পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ নাজমুল হক, ওসি আশরাফ হোসেন, ওসি (তদন্ত) আলমগীর কবির, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ শাহাদাৎ হোসেন বাচ্চু, ডেপুটি কমান্ডার আব্দুর রাজ্জাক মলঙ্গী, মুক্তিযোদ্ধা গাজী রফিকুল ইসলাম, আ’লীগনেতা শেখ মনিরুল ইসলাম, অধ্যক্ষ মোঃ রবিউল ইসলাম, মিহির বরণ মন্ডল, প্রাক্তন অধ্যক্ষ রমেন্দ্রনাথ সরকার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ প্রভাত কুমার দাস, ইউপি চেয়ারম্যান কেএম আরিফুজ্জামান তুহিন, রিপন কুমার মন্ডল, প্রধান শিক্ষক অপু মন্ডল, প্রাক্তন অধ্যাপক জিএম আজহারুল ইসলাম, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক সুরাইয়া বানু ডলি, শিক্ষক অজিত কুমার সরকার, সাংবাদিক তৃপ্তী রঞ্জন সেন, এস ইসলাম সাগর ও প্রকাশ ঘোষ বিধান সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এ্যাডঃ শফিকুল ইসলাম কচি, প্রভাষক মাসুদুর রহমান মন্টু, ময়নুল ইসলাম, রেবা আক্তার কুসুম ও বজলুর রহমান, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার দেবাশীষ সরদার, সহকারী শিক্ষা অফিসার শোভা রায় ও সাংবাদিক আব্দুল আজিজ।
##

পাইকগাছায় বীর প্রতীক ডাঃ সেলিমের ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত
পাইকগাছায় বীর প্রতীক ডাঃ সেলিমের ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার দুপুরে মরহুমের গ্রামের বাড়ী মৌখালীতে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উল্লেখ্য ডাঃ সেলিম ১৯৮০ সালে ২৭ মার্চ লিবিয়ার বেনগাজী শহরে এক মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হন। তিনি খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার মৌখালী গ্রামের মরহুম রুহুল আমিন মোল্লার দ্বিতীয় সন্তান। তার পিতা ছিলেন একজন উচ্চ পদস্থ সরকারী কর্মকর্তা। ১৯৭১ সালে ২ নং সেক্টরে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন ডাঃ সেলিম। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য বীর প্রতীক খেতাবে ভূষিত হন ডাঃ সেলিম। ছাত্র জীবন থেকে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন সেলিম। তিনি ৬দফা ১১ দফা আন্দোলন থেকে শুরু করে ১৯৬৯ সালের গণ অভ্যুত্থানে অংশগ্রহণ করেন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন তিনি। ১৯৭০ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ভিপি নির্বাচিত হন এবং ১৯৭৩-৭৪ সালে বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭৪ সালে ঐতিহাসিক কংগ্রেসে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। তিনি বঙ্গবন্ধু এবং প্রায়াত ছাত্রনেতা শেখ ফজলুল হক মনির বিশ্বস্ত ও কাছের মানুষ ছিলেন। সেলিম ৫ ভাই ও ২ বোনের মধ্যে দ্বিতীয় ছিলেন। বড়ভাই আফজাল হোসেন গত ৫-৬ বছর আগে মারা যান। বোন রওশন রহমান ইভা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা, ড. মশিউর রহমানের স্ত্রী। আখতারুজ্জামান সুজা বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা। আশরাফুজ্জামান বেনু সেনাবাহিনীর মেডিকেল অফিসার। ভাই আনিস মোল্লা ও বোন নাজনীন হোসেন আফু যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। রোববার ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ মোঃ রবিউল ইসলাম, মাওঃ এসএম সাইফুল্লাহ, প্রধান শিক্ষক শশাঙ্ক শেখর বাছাড়, ইউপি সদস্য মাহমুদা জামান, শফিকুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা জামাত আলী, মনিরুল ইসলাম মনি মোল্লা, মোজাম্মেল হক মোল্লা ও শিক্ষক এসএম নূরুল ইসলাম। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাওঃ আফসার উদ্দীন ফিরোজী।
##
পাইকগাছায় আইনজীবী ফজলুল হক স্মরণে ডেথ রেফারেন্স ও শোক সভা

পাইকগাছায় আইনজীবী একেএম ফজুলুল হক স্মরণে ডেথ রেফারেন্স, শোক সভা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে রোববার সকালে সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ডেথ রেফারেন্স শেষে আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে সভাপতি এ্যাডঃ জিএম আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আবুল কালাম আজাদের পরিচালনায় শোক ও আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন এ্যাডঃ আব্দুল মজিদ গাজী, দিপঙ্কার কুমার সাহা, শেখ আব্দুর রশিদ, প্রশান্ত কুমার ঘোষ, প্রশান্ত কুমার মন্ডল, মোঃ আব্দুল্লাহ আল-মামুন, মোঃ আবুল হোসেন জোয়াদ্দার, এসএমএবি সিদ্দিক, চিত্তরঞ্জন সরকার, অজিত কুমার মন্ডল, শফিকুল ইসলাম কচি, মোজাফ্ফার হাসান, বিপ্লব কান্তি মন্ডল, সমীর কুমার বিশ্বাস, কিশোর মোহন মন্ডল, বিলাস চন্দ্র রায় ও টিএম মহীউদ্দীন। উল্লেখ্য একেএম ফজলুল হক গত বৃহস্পতিবার পৌর সদরের বাতিখালীস্থ নিজ বাসভবনে মৃত্যু বরণ করেন। ইন্নালিল্লাহি…………রাজিউন। মৃত্যুকালে তিনি এক স্ত্রী তিনপুত্র ও এক কন্যা সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। ফজলুল হক মৃত হাজী ছিয়াম উদ্দীন মোল্লার ছেলে। তিনি ইতোপূর্বে ২৯/৫/২০০৮ থেকে পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির মাধ্যমে আইন পেশায় নিয়জিত ছিলেন। এর আগে তিনি পাইকগাছা কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক, রূপালী ব্যাংক পাইকগাছা শাখায় সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার হিসাবে কর্মরত ছিলেন।
##
পাইকগাছায় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের মত বিনিময়

পাইকগাছায় সোলাদানা ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তি বিভিন্ন সময় হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বিচ্ছিন্ন ঘটনায় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ গতকাল শুক্রবার দুপুরে ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন এবং স্থানীয় সুধী জনের সাথে মত বিনিময় করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঐক্য পরিষদের জেলা সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. অজিত কুমার মন্ডল, উপজেলা সভাপতি রবিন্দ্র নাথ রায়, সাধারন সম্পাদক তৃপ্তি রঞ্জন সেন, পূজা উদযাপন পরিষদের উপজেলা সাধারন সম্পাদক আনন্দ মোহন বিশ্বাস, ঐক্য পরিষদের উপজেলা সহ-সভাপতি প্রাণ কৃষ্ণ দাশ, তপন কুমার বাইন, সাবেক পৌর কাউন্সিলর হেমেশ চন্দ্র মন্ডল, সোলাদানা ইউনিয়ন সভাপতি পঞ্চানন সানা, সাধারন সম্পাদক বিমল কৃষ্ণ সরদার, প্রমথ মন্ডল, রাজিব সরদার, দেবব্রত সরদার, পিযুষ মন্ডল, সুনিল সানা, অজয় সানা, দীলিপ সানা, নব নির্বাচিত ইউপি সদস্য রাজেশ মন্ডল, বিমল সরদার প্রমুখ।