পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের দাবি উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে


297 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের দাবি উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে
জুন ২৩, ২০১৭ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক :

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মার্কিন সফরের দু’‌দিন আগে বড় ধাক্কা খেল পাকিস্তান। তাদের সঙ্গে সবরকম সম্পর্ক ছিন্ন করতে মার্কিন কংগ্রেসে একটি দ্বিদলীয় প্রস্তাব পেশ করেছেন বর্ষীয়ান রিপাবলিকান নেতা টেড পো এবং ডেমোক্র‌্যাটিক নেতা রিক নোলান।

শুক্রবার সকালে মার্কিন কংগ্রেসে বিলটি পেশ করেছেন তারা। তাতে বলা হয়েছে, ‘‌ন্যাটো সদস্য না হওয়া সত্ত্বেও এতদিন পাকিস্তানকে অন্যতম সহযোগী দেশ হিসেবে স্বীকার করে এসেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু তার মর্যাদা রাখেনি ইসলামাবাদ। সন্ত্রাসের মোকাবিলার জন্য তাদের যে বিপুল পরিমাণ অর্থ দেওয়া হয়েছিল, তা সন্ত্রাসবাদীদের পুষতে কাজে লাগিয়েছে তারা। সন্ত্রাস নির্মূল করার বদলে দেশের মাটিতে সন্ত্রাসবাদীদের নিরাপদ আশ্রয়ের ব্যবস্থা করে দিয়েছে তারা। এত কিছুর পর ইসলামাবাদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা উচিত নয়। ’

ওয়াশিংটন ডিসিতে দাঁড়িয়ে কড়া ভাষায় পাকিস্তানকে আক্রমণ করেছেন টেড পো। তিনি বলেছেন, ‘‌পাকিস্তানের হাতে নিরীহ মার্কিন নাগরিকদের রক্ত লেগে রয়েছে। ওসামা বিন লাদেনকে দেশে আশ্রয় দেওয়া হোক বা তালিবান জঙ্গিদের সমর্থন, ভিন্ন মতাদর্শীদের নিকেশ করাই যাদের লক্ষ্য, সেই সক্রিয় সন্ত্রাসবাদী এবং সন্ত্রাসী সংগঠনগুলিকে বরাবর সমর্থন জুগিয়ে এসেছে ইসলামাবাদ। তাই ওদের সঙ্গে কোনওরকম সম্পর্ক রাখাই উচিত নয়। ওদের নূন্যতম সাহায্যটুকুও দেওয়া উচিত নয়। আমাদের আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র যাতে ওদের হাতে না পৌঁছয়, অবিলম্বে সেই ব্যবস্থা করা উচিত। ’‌

এদিকে পাকিস্তান মার্কিন সরকারের দেওয়া সমস্ত সুযোগ সুবিধার অপব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ রিক নোলানের। তার দাবি, ‘‌সবসময়ই মার্কিন সরকারের ভালমানুষের সুযোগ নিয়েছে পাকিস্তান। প্রমাম করেছে ওরামোটেই আমাদগের বন্ধুরাষ্ট্র নয়। গত ১৫ বছর ধরে পাকিস্তানকে যে কত বিলিয়ন টাকা জোগানো হয়েছে তার ইয়ত্তা নেই। যাতে ওই টাকায় সন্ত্রাস নির্মূল হয় আবার আমাদের নিরাপত্তাও বজায় থাকে। কিন্তু আদতে কিছুই হয়নি। তাই এবার জেগে ওঠার সময় হয়েছে। ছবিটা তো পরিষ্কার!‌ যে সন্ত্রাসী সংগঠনগুলিকে নির্মূল করার কথা ছিল, তাদের সঙ্গেই হাত মিলেয়েছে পাকিস্তান। ’‌