পাটকেলঘাটার জীবনবীমা কর্মী পুলক পাল এখন ক্লিনিক পরিচালক


342 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটার জীবনবীমা কর্মী পুলক পাল এখন ক্লিনিক পরিচালক
নভেম্বর ২, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

মোঃ কামরুজ্জামান মোড়ল :
পাটকেলঘাটা লোকনাথ নার্সিং হোমে সেবার নামে চলছে নানা প্রতারণা। সরকারীভাবে ১০ বেডের অনুমোদন নিয়ে ৪০ বেড চালানোর অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে। সুচতুর ক্লিনিক পরিচালক ১৬ জন নামীদামী ডাক্তারের নাম ঠিকানা লিখে বিশাল আকারের এক সাইনবোর্ড টাঙিয়ে গত ৬-৭ বছর ধরে প্রতারণামূলক ভাবে নিরীহ মানুষদের নিকট থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অনুসন্ধান করে জানা গেছে, থানার পারকুমিরা গ্রামের মৃত সুবোধ পালের পুত্র একসময়ের জীবনবীমা কর্মী সুচতুর পুলক কুমার পাল এলাকার স্বনামধন্য ডাক্তার প্রবীর কুমার দাসের সঙ্গে যৌথভাবে পাটকেলঘাটা হাইস্কুল রোডে লোকনাথ নার্সিং হোম নামের ক্লিনিক চালু করেন। কিছুদিন ভালভাবে চালানোর পর ডাক্তার প্রবীর কুমার দাস (বর্তমান সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের প্রভাষক) সুচতুর ঐ পরিচালকের সাথে রোগীদের সহিত প্রতারণার বিষয়ে বিরোধ হলে তিনি ক্লিনিক ছেড়ে চলে যান। এ সুবাদে বর্তমান পরিচালক একসময়ের জীবনবীমা কর্মী পুলক কুমার পাল এলএমএএফপি ডাক্তার নামধারী মিহির কুমার  ও তার সহযোগী কিংকর কুমারকে পার্টনার করে ক্লিনিকের কার্যক্রম চালাতে থাকেন। ঐ ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা বিভিন্ন গ্রামের সহজ সরল মানুষদের সাথে সেবার নামে প্রতারণা করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। কয়েকজন ভুক্তভোগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে গুরুতর অসুস্থ হওয়া রোগীরা একবার ঐ ক্লিনিকে ভর্তি হলে পরিচালক নিজেই বড় ডাক্তার বলে প্রতারণামূলকভাবে তাদের চিকিৎসার সেবা নামে বড় অংকের টাকার চুক্তি করে থাকেন। বেসরকারী ক্লিনিকে একজন এমবিবিএস ও ডিপ্লোমাধারী নার্স থাকার কথা থাকলেও এ ক্লিনিকে নেই। এবিষয়ে সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন সালেহ আহমেদ জানান, সারা দেশে এভাবেই ক্লিনিক চলছে। ব্যবস্থা নেয়া হবে।