পাটকেলঘাটাসহ তালা উপজেলায় সরকারী পৃষ্টপোষকতার অভাবে আখ চাষ বিলুপ্তির পথে


421 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটাসহ তালা উপজেলায় সরকারী পৃষ্টপোষকতার অভাবে আখ চাষ বিলুপ্তির পথে
নভেম্বর ১৪, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

মাহফুজুর রহমান মধু ,পাটকেলঘাটা :
কৃষকের অতীত ইতিহাস ঐতিহ্যের ধারক বাহক হিসাবে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখে তৃর্নমূল এলাকার চাষীরা । বাংলাদেশের অর্থকারী ফসলের মধ্যে অন্যতম আখ পাটকেলঘাটাসহ তালা উপজেলায় সরকারী পৃষ্টপোষকতার অভাবে আখ চাষ বর্তমানে বিলুপ্ত হতে চলেছে।

একসময় উপজেলার সর্বত্রই মাঠের পর মাঠ আখ চাষ করা  হতো । আখ চাষে বেশ সফলতা অর্জন করত। কৃষকের নায্য দাম আর অনুকুল পরিবেশ না থাকার কারনে তালায় আখ চাষ বিলুপ্ত প্রায়। বেশ কয়েক বছর আগেও আখ চাষ কৃষকের নিকট গুরুত্ববহ ছিল। শীতের মৌসুমের শুরুতেই আখ মাড়াই শুরু হয়ে যেত।  চাষীরা আখ মাড়াই করে রস জালিয়ে গুড় পাটালী তৈরী করত।

এক সময় সনাতন পদ্ধতিতে গরু দিয়ে  আখ মাড়াই করা হত মাঝ রাত হতেই শুরু হয়ে যেত আখ কেটে রস বের করার কর্মকৌশল। দেখা যেত দু’একটি বাড়ি ছাড়া গ্রামাঞ্চলের সকল বাড়িতে এই শীত মৌসুমে ব্যস্থতার সাথে আখ মাড়াইয়েই সময় অতিবাহিত করত। বিশেষ করে গ্রামের মাঠ গুলোতে যেন আখ মাড়াইয়ের হিড়িক পড়ে যেত। আখ মাড়াইয়ের কথা আজকের দিনে সেটি একেবারেই রূপকথার মত মনে হয়।

বর্তমানে  বাজারে বিক্রিত একপিচ আখের মুল্য ৩০-৪০ টাকা। জুজখোলা গ্রামের রসুল মোড়ল জানান, আখ চাষ করে আমরা অর্থনৈতিকভাবে অনেক সফলতা অর্জন করেছিলাম। খলিষ খালী গ্রামের লুৎফর রহমান জানান  আখ চাষ কান্ড পচা ও মাজরা রোগের কারনে কৃষকরা এখন আর আখ চাষ করতে চায় না। সরকারী ভাবে যদি কৃষকদেরকে উদ্বুদ্ধ করানো হয় তাহলে আবারো কৃষক আখ চাষে ফিরে আসতো। আখ চাষে একদিকে পরিবারের সারা বছরের জ্বালানী ও মিষ্টির চাহিদা মেটাত। পাটকেলঘাটার আমতলাডাঙ্গা গ্রামের চাষী মফিদুল ইসলাম জানান,আখচাষে অধিকপোকার আক্রমন,বছরে এক ফসলী,মাড়াই কলের অভাব ও অন্য ফসলের চাইতে অলাভজনক হওয়াতে তালার কৃষকরা আখ চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে। এদিকে তালা উপজেলার সরুলিয়া ইউনিয়নের আখচাষী সেলিম সরদার জানান আখচাষ তেমন না হলেও গতকয়েক বছর সরকারী ভাবে বরাদ্ধকৃত অমৃত ৪১ ও অমৃত ৪২ জাতের আখ চাষ করে বেশ লাভবান হয়েছেন ।

এক বিঘা জমিতে আখচাষ করে তিনি প্রায় এক লক্ষ টাকার কাাঁচা আখ বিক্রি করেছেন। কৃষি বিজ্ঞানীদের মতে, আখের মাধ্যমে যে গুড় তৈরী হয় সেটা প্রত্যেক মানুষের  মেধা বিকাশে সহায়তা করে । এ ব্যাপারে তালা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামছুল আলম এই প্রতিবেদক জানান, আখ চাষ পাটকেলঘাটাসহ তালা উপজেলায় প্রত্যন্ত অঞ্চলে একেবারেই নেই বললেই চলে, কারন হিসাবে রোগবালাই,সারা বছর একটানা ফসল ও জলাবদ্ধতার কারনে কৃষকরা আখ চাষে উৎসাহ হারিয়ে ফেলেছে ।