পাটকেলঘাটায় জলাবদ্ধতার কারণে নাকাল জনজীবন


561 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটায় জলাবদ্ধতার কারণে নাকাল জনজীবন
আগস্ট ২২, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কামরুজ্জামান মোড়ল,  পাটকেলঘাটা :
সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় জলাবদ্ধতার কবলে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে বাড়িঘর, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, ফসলি জমি। শ্রাবণের বাদল ঝরা দিন শেষ হতে না হতেই ভাদ্রের বর্ষণে জনজীবন একেবারেই স্থবির হয়ে পড়েছে।

গত রবিবার প্রায় ২৪ ঘন্টারও অধিক সময় ধরে একটানা অতিবর্ষণের কবলে গ্রামবাংলার পথঘাট, কাচা, পাকা, আধাপাকা ঘরবাড়ি পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। এদিকে মুষলধারে বৃষ্টিপাতের কারণে তলিয়ে গেছে আমন ধানের বীজতলা, ভেসে গেছে পুকুর ও ঘের। পাটকেলঘাটার গ্রামগুলোতে দেখা দিয়েছে প্লাবন। অধিকাংশ ঘরবাড়ি জলাবদ্ধতার কবলে পড়ায় পানি বন্দি হয়ে পড়েছে অনেক পরিবার। মাহমুদ গ্রামের ঘের ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম জানান, এ বছর একটি ঘেরে প্রায় ১ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছি। বৃষ্টিপাতের যে চাপ তাতে পানি ছাপিয়ে গেলে একেবারে সর্বশান্ত হয়ে যাবো। সরেজমিনে দেখা গেছে, থানার অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জলাবদ্ধতার কবলে। রাঢ়ীপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুমিরা বালিকা বিদ্যালয় সহ অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বর্তমানে হাটু পানিতে নিমজ্জিত। বাড়ির আঙিনা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে।

Patkelghata Picture=22.08

সবচেয়ে বেশি কষ্টে দিনাতিপাত করছে খেটে খাওয়া সাধারন মানুষগুলো। একদিন শ্রম না দিলে যাদের পেটে আহার জোটে না তারা পড়েছেন মহাবিপাকে।

কুমিরা গ্রামের মোকাম সরদার জানান, এতো বর্ষায় কেউ কাজে নিতে চাই না। এভাবে আবহাওয়া চলতে থাকলে পেটে পাথর বাধা ছাড়া উপায় থাকবে না। জানা যায়, এখানকার প্রধান ফসল পান চাষ হওয়ায় জীবিকার খুব একটা কষ্ট হয় না। কিন্তু গেল বৃষ্টিতে অনেকের বরজ পানিতে তলিয়ে গেছে। আবার অনেকের ক্ষেত মাটিতে শুয়ে পড়েছে। কুমিরা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ গোলাম ভরাক্রান্ত মনে জানান, অতি বর্ষণের কবলে আমার ইউনিয়নের বাসিন্দারা অনেকে পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে আমি পানির ভেতর বসবাস করছি। দিনভর খেটে খাওয়া মানুষগুলোর একটু খোজ নেওয়ার চেষ্টা করছি।