পাটকেলঘাটায় তৃতীয় স্ত্রীর হাতে ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার লাঞ্চিত !


500 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটায় তৃতীয় স্ত্রীর হাতে ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার লাঞ্চিত !
ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার  ::
পাটকেলঘাটায় বহু বিবাহের হোতা আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমানের তৃতীয় স্ত্রী শাহিনা বেগম মর্যাদা আদায়ের জন্য জনসমক্ষে জুতা পেটার ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি মঙ্গলবার ভরণপোষণের দাবিতে ইউপি কার্যালয়ের সামনে অনশন শুরু করেন। এ ঘটনায় গত দুইদিন পাটকেলঘাটা বাজার সহ গোটা এলাকায় হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

ভূক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ৩ নং সরুলিয়া ইউপির চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান তারই ইউনিয়নে শাকদহ গ্রামে বসবাসরত ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমানের বাড়িতে আসা যাওয়ার সুবাদে তার সুন্দরী স্ত্রী ও ২ সন্তানের জননী শাহিনা খাতুন (৪৫) সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সুচতুর চেয়ারম্যান নানা অযুহাত খাড়া করে নিরীহ ঐ ব্যবসায়ীকে চক্রান্তের জালে জড়িয়ে তার স্ত্রীকে ডিভোর্স করাতে বাধ্য করে। এতেও তিনি ক্ষান্ত না হতে পেরে ব্যবসায়ী সিদ্দিককে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে এলাকা ছাড়া করে। এরপর দুজনের পরকীয়া ।  একপর্যায়ে বিগত ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ৫০ হাজার টাকার কাবিনে বিয়ে করেন চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান। বিয়ের পর চেয়ারম্যান স্বামী স্ত্রী রুপে ঐ বাড়িতে যাওয়া আসা করতে থাকেন। এখবর পেয়ে ঐ চেয়ারম্যানের বাড়ির বড় স্ত্রী ও পুত্র শাকদহ গ্রামের ঐ বাড়িতে গিয়ে হাতেনাতে ধরার পর জনরোষের স্বীকার হয়ে পালিয়ে সে যাত্রায় রক্ষা পাই। এরপর দীর্ঘদিন উভয়ের মধ্যে কোনো যোগাযোগ স্ত্রীর মর্যাদা এবং ভরণপোষণ না দেয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে মঙ্গলবার সকালে স্ত্রী শাহিনা পাটকেলঘাটার ৫ রাস্তা মোড়ে জনসমুখে চেয়ারম্যানের জামার কলার ধরে জুতা পেটা করতে থাকে।

ঘটনার সময় প্রত্যক্ষদর্শী জাসদ নেতা বিশ্বাস আবুল কাশেম, আ’লীগ নেতা ওয়াদুদ সরদার, পুটিয়াখালীর শেখ রেজাউল ইসলাম, জুজখোলার আনসার মোড়ল, যুগিপুকুরিয়া গ্রামের খোদা বক্র  বিষয়টি নিশ্চিত করে অত্যন্ত দুঃখজনক বলে জানান।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে ২০১৫ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি আইন অনুযায়ী ম্যারেজ রেজিষ্টারের মাধ্যমে কাবিননামার ৫০ হাজার সহ খোরপোষের সমুদয় টাকা ৩ কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ পূর্বক তালাক দেয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের স্বীকার, ঐ মহিলা পূর্বের স্বামীর সঙ্গে পুনঃরায় বিয়ে করেছে। উপজেলা আ’লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক ও অনাকাংখিত ঘটনা বলে জানান।