পাটকেলঘাটায় স্কুলছাত্রী স্বপ্নার আতœহত্যা নিয়ে কুচক্রীদের নানা তৎপরতা


312 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটায় স্কুলছাত্রী স্বপ্নার আতœহত্যা নিয়ে কুচক্রীদের নানা তৎপরতা
নভেম্বর ১২, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি ॥
পাটকেলঘাটায় স্কুল ছাত্রী স্বপ্নার আতœহত্যা ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করে ব্যক্তি বিশেষকে জড়াতে একশ্রেণীর কুচক্রীমহল নানা তৎপরতা শুরু করেছে। কুচক্রীরা প্রকৃত ঘটনাটি  চাপা রেখে ব্যক্তি আক্রোশে বাড়ির মালিক সাংবাদিক কামরুজ্জামানের

হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য নিহতের পিতামাতার অভিব্যক্তি না শুনে খামখেয়ালীপনাভাবে সাংবাদিকদের কাছে ভূল তথ্য সরবরাহ করে সংবাদ প্রকাশ করায় পরিবার সহ আশপাশের লোকজন হতবাক হয়েছে।

নিহত ছাত্রীর মা ফরিদা বেগম ও পালিত পিতা আমজেদ’র সাথে কথা বলে ঘটনার বিবরণে জানা যায়, দীর্ঘদিন পাটকেলঘাটা খাদ্য গুদামের পাশে নুরুল শেখের বাড়ি ভাড়া থাকাবস্থায় স্থানীয় গফুরের আইসক্রীম ফ্যাক্টরীর কর্মচারী জুজখোলা গ্রামের

আলামিনের সাথে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে তোলে। বিষয়টি ঐ ছাত্রীর পিতা মাতা বুঝতে পেরে গত মাস খানেক পূর্বে ঘটনাস্থল ওভারব্রীজ সংলগ্ন কামরুলের ভাড়া বাড়িতে উঠে বসবাস করতে থাকে। এমতাবস্থায় ঘটনার দিন সকালে প্রতিদিনের ন্যায় মা

ফরিদা বেগম টোকায়ের কাজ করতে বাইরে চলে যায়। বাসায় কেউ না থাকার সুযোগে স্বপ্না তার মায়ের শাড়ি ঘরের আড়ার সাথে বেধে গলায় পেচিয়ে আতœহননের পথ বেছে নেয়। দীর্ঘসময় ঘরের মধ্যে কোনো সাড়া শব্দ না শুনতে পেয়ে পাশের ঘরে

থাকা ভাড়াটিয়া দিনমজুর আশরাফুলের স্ত্রী সালমা ও ইলেকট্রনিক্্র মিস্ত্রী ময়নার স্ত্রী সোনিয়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে নিহতের লাশ পোষ্টমর্টেম এর জন্য নিয়ে যায় এবং আলামত হিসেবে নিহত স্কুলছাত্রী স্বপ্নার

ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি জব্দ করে। যা প্রকৃত তদন্তে সঠিক তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে নিহতের মা দাবি করেন। ভাড়াটিয়া সালমা বেগম ও সোনিয়া বলেন, নিহত স্বপ্না ঘরমালিক কামরুলকে মামা বলে সম্বোধন করত। তিনিও খুব ¯েœহ করতেন।
##