পাটকেলঘাটা সংবাদ ॥ গ্রীস্মকালীন টমেটো চাষ করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে কৃষক হামিদুর রহমান


401 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাটকেলঘাটা সংবাদ ॥ গ্রীস্মকালীন টমেটো চাষ করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে  কৃষক হামিদুর রহমান
নভেম্বর ১৭, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

মাহফুজুর রহমান মধু, পাটকেলঘাটা :
পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা ইউনিয়নের কৃষকরা গ্রীস্মকালীন টমেটো চাষ করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে  কৃষক হামিদুর রহমান (বাপ্পী) । এক ভাই ও তিন বোনের সংসারের হামিদুর রহমান এইচ এসসি পাস করে জমি চাষবাস করে ।

দারিদ্র ও অভাবের  কারনে আর পড়াশুনো শেষ করতে পারিনি । এজন্য তিনি কৃষিকাজ শুরু করেন। বিভিন্ন ফসল চাষের পাশাপাশি তিনি জানতে পারেন যে শুধু শীতকালীন নয় গ্রৗস্মকালেও টমেটো চাষ করা সম্ভাব ।

এরপর তিনি খোঁজ খবর শুরু করে গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষের জন্য বিখ্যাত যশোর জেলার বাঘার পাড়া উপজেলার কৃষকদের থেকে বারি হাইব্রিড টমেটো-চার এর বীজ সংগ্রহ করে চাষ শুরু করেন। কিন্তু নতুন ফসল ও গ্রীষ্ম কালীন টমেটো চাষ সম্পর্কে সঠিক ব্যাবস্থাপনা জানা না থাকায় খুব একটা লাভ করতে পারেনি। এর পর পাটকেলঘাটায় একটি বে সরকারী উন্নয়ন মূলক সংস্থা উন্নয়ন প্রচেষ্টার ঋন গ্রহন করে ১বিঘা ৩৩ শতাংশ জমিতে গ্রীষ্মকালীন টমেটো বারি হাইব্রিড জাতের টমেটো -৪, ও বারি হাইব্রিড টমেটো-৮ চাষের মাধ্যমে কৃষক হামিদুর রহমান  অধিক লাভবান হয় বলে জানা যায়। ইতোমধ্যে তিনি টমেটো বিক্রয় করে তার সংসারের সচ্ছলতা ফিরে এসেছে।

এই বিষয়ে কৃষক হামিদুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনিএই প্রতিবেদককে বলেন, আগামী ১থেকে দু’ মাস পর্যন্ত টমেটো বাজারের বিক্রয় করতে পারবো বলে আশাবাদী। গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষের ব্যয়বহুল হলেও অধিক লাভবান হওয়া যায়।  এই জন্য তিনি সংস্থার কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শেসফলতা পেয়েছেন।
##

পাটকেলঘাটার খলিষখালী  ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীদের বিরামহীন গনসংযোগ

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি :
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দিনক্ষন ঠিক না হলেও আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে খলিষখালী  ইউনিয়নের সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা গনসংযোগে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দীর্ঘদিন প্রার্থীরা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ওয়ার্ডে গনসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। প্রার্থীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত পাড়া মহল্লায় গন সংযোগকালে ভোটার কর্মি সমর্থকদের কাছে দোয়া ও সামর্থন কামনা করে চলেছেন। প্রার্থীরা হলেন খলিষ খালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ওয়ার্কাস পাটির নেতা অধ্যাপক সাব্বীন হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক অশোক লাহেড়ী, আওয়ামীলীগ নেতা সাংবাদিক মোজাফ্ফর রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সমীর কান্তি দাস।

প্রার্থীরা বলেন দল আমাকে মনোনয়ন দিলে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করব। দলের সিদ্ধান্তের বাইরে কোন কিছু করব না। এদিকে প্রার্থীদের নিয়ে পাড়ায় মহল্লায় হাট বাজারে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষন। কে হবেন দলীয় প্রার্থী তা নিয়ে দলীয় কর্মি সামর্থকদের মধ্যে চলছে জল্পনা কল্পনা। প্রার্থীদের সাথে আলাপকালে তারা বলেন দলীয় প্রার্থী নির্বাচিত হওয়াটাই এখন বড় চ্যালেঞ্জ । এদিকে সরকারী দলের বাইরে জামায়াত বিএনপির  প্রার্থীরা  নিরবে গনসংযোগ চালাচ্ছে বলে জানা গেছে।