পান চাষে ভ্যান চালক শাহাজানের ভাগ্যবদল


450 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পান চাষে ভ্যান চালক শাহাজানের ভাগ্যবদল
অক্টোবর ১৫, ২০১৫ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
দেবহাটার ভ্যান চালক শাহজান আলীর দারিদ্রতা কাটিয়ে স্বচ্ছলতা ফিরে পেয়েছে পান চাষে। সে দেবহাটা উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নের কোঁড়া গ্রামের মৃত অব্দুল জব্বারের পুত্র। ছোট বেলায় তার ভাগ্যে লেখাপড়ার সুযোগ হয়নি। কর্মক্ষেত্রে কেটে গেল তার সারা জীবন। বিয়ের পর এক পুত্র ও এক কন্যাকে নিয়ে কোন রকম চলছিল সংসার।

নুন আনতে পানতা ফুরাই আর পানতা অনতে নুন। এরই মধ্যে চলছিল তার জীবন যুদ্ধ। দেখতে দেখতে শাহাজান আলীর কন্যাকে বিয়ে দিয়ে জড়িয়ে পড়ে বড় ঋনের বোঝা। টিক সেই সময় আশার মুখ দেখায় পান চাষে। সব কিছু উপেক্ষা করে ঝুঁকি নিয়ে নেমে পড়েন পানের বরজ করতে। জীবনের শেষ ঝুকি নিয়ে ৫ বিঘা জমি লিজ নিয়ে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা খরচ করেন তিনি পানের বরজ করতে।

তার ঝুঁকি নিয়ে পানের বরজ করা বিফলে যায়নি। এখন সে প্রতি নিয়ত বরজ থেকে বিভিন্ন জায়গায় পাইকারী ও খুচরা ভাবে পান বিক্রি করছে। সাথে সাথে তার ভাগ্যের চাকা ঘুরে গেছে। আর্থিক ভাবে এখন সে সাবলম্বী। শাজাহান আলীর পানের বরজ দেখে এখন অনেকেই পানের বরজ করার পরিকল্পনা গ্রহন করছে। এ বিষয়ে দেবহাটা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জসীম উদ্দীন বলেন, পান চাষের মাধ্যমে একজন মানুষের আর্থিক ভাবে উন্নতি হওয়া সম্ভব।

কৃষি অফিসের পরামর্শ নিয়ে এবং বাস্তবায়নে তার সঠিক পরিচর্যা করলে কৃষি পারে কৃষককে স্বাবলম্বী করার পাশাপাশি বাংলাদেশকে কৃষি প্রধান দেশ হিসাবে তৈরি করতে।