‘পুনরায় নির্বাচিত হলে সরুলিয়া ইউনিয়নের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করব’


287 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘পুনরায় নির্বাচিত হলে সরুলিয়া ইউনিয়নের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করব’
জানুয়ারি ১৮, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাটকেলঘাটা ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি :
জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৩নং সরুলিয়া ইউনিয়ন বাসীর উন্নয়নে ও কল্যানে কাজ করে যাচ্ছেন মতিয়ার রহমান । তিন -তিন বার নিষ্ঠার সঙ্গে সরুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন কালে ইউনিয়নের অনেক উন্নয়ন মূলক কাজ করেছেন,তা-ছাড়া দু’-দু’বার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে সৎ ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে,আওয়ামীলীগকে সুংগঠিত করে রেখেছেন।তৃর্নমূল কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সকল আন্দোলন সংগ্রামের মোকাবেলা করেছেন । বিগত অন-ইলেভেনের সময়ে তালা উপজেলায় বারোটি ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের মধ্যে তিনি একমাত্র ব্যক্তি, যার গায়ে কোন দূনীতি দাগ ছিল না । যে কারনে তিনি ওপেন ঘোরা ফেরা করেছেন সেনা কর্মকতাদের সাথে । তিন বার চেয়ারম্যান দায়িত্ব পালন কলে অর্থনৈতিক ভাবে তেমন সাবল্মবী না হলেও তার সঙ্গে রয়েছে ইউনিয়নের সাধারন মানুষের দোআ ও ভালবাসা । যার প্রমান মিলেছে বিগত কয়েক বার মতবিনিময় সভা কালে ইউনিয়ন বাসীর অংশগ্রহনের মাধ্যমে । আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি আশাবাদী দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার। সে লক্ষে তিনি গন-সংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। গনসংযোগ কালে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড জনগনের কাছে তুলে ধরছেন এবং অসামপ্ত কাজ গুলো সমাপ্ত করার আশ্বাস দিচ্ছেন। ১৯৫২ সালে তালা উপজেলার পাটকেলঘাটায় জুসখোলা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন তিনি । তিনি একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা হিসাবে মহান স্বাধীনতার যুদ্ধের সময় পাকহানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন এবং তার পরিবার থেকে আরো দুইজন মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছিলেন। তার মধ্যে একজন তালা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হিসাসে দায়িত্ব পালন করছেন। আরেক জন সরুলিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন । ১৯৮৫ সালে প্রথম বারের ৩নং সরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। দ্বিতীয় বার ১৯৮৮ সাল এবং তৃতীয় বার ২০০৩ সালে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান থাকাকালীন অবস্থায় তিনি নিজ এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। তার মধ্যে রাস্তা ঘাট বিদ্যুৎ ব্যবসা বানিজ্য, দারিদ্র বিমোচন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন ও কপোতাক্ষ নদের জলবদ্ধতা দুরিকরন জন্য , ইউনিয়নের পানি সরানো জন্য কামারডাঙ্গী জনাকের বাড়ীর পাশের গেটসহ নিজ উদ্যোগে পানি নিস্কাসনের জন্য ব্যাপক ভূমিকা রেখেছিলেন। মাদকমুক্ত সমাজ, সন্ত্রাস,চাঁদাবাজ মুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করেছিলেন । জীবনের শুরু থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশের অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে সম্পৃক্ত আছেন। ১৯৭২ সালে তিনি তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৩ সালে সরুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হন । পরবর্তী ২০১৩ সালে কাউন্সলিদের প্রত্যেক্ষ বিপুল  ভোটে পূর্নরায় সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হন। বর্তমান সরুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হিসাবে  জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে  ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে এবং দলকে সুসংগঠিত করার লক্ষে  নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।  তিনি তিন বার চেয়ারম্যান থাকা কালীন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদে ভূষিত হয়েছেন। খুলনা বিভগে এলজি-এসপি এলআইসি ভুক্ত ইউনিয়নের মধ্যে তিনি ২০০৯ সালে চতুর্থ স্থান অধিকার  করেছিলেন। বাংলাদেশ জনসংখ্যা নীতি ২০০৯ সালে খসড়া উপর মতামত গ্রহনের খুলনা বিভাগে তৃতীয় স্থান অধিকার লাভ করেন। সর্বপরি ২০১০ সালে সাতক্ষীরা জেলা শ্রেষ্ট চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হন । একান্ত সাক্ষতকারের এই প্রতিবেদককে বলেন,পূর্নরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারলে বিগত দিনের উন্নয়নের গতি ধারা অব্যহত রাখবো । সরুলিয়া ইউনিয়নকে দূর্নীতি , মাদক,সন্ত্রাস মুক্ত করবো এবং জলবদ্ধাতা নিরসনে কাজ করবো ।