প্রতাপনগরে শহিদ মিনারে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন


146 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
প্রতাপনগরে শহিদ মিনারে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন
ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কৃষ্ণ ব্যানার্জী ::

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আশাশুনির প্রতাপনগর ইউনাইটেড মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। শুক্রবার সকালে প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শেখ জাকির হোসেনের নেতৃত্বে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে একটি র‌্যালী বের হয়ে তালতলা বাজার প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে ইউনাইটেড মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি শেখ জাকির হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজেদ হোসেন, প্রধান শিক্ষক জয়দেব কুমার দাশ, সহকারী প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, সহকারি শিক্ষক শহিদুল্লাহ, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুল বারিক, ইউপি সদস্য কহিনুর ইসলাম বাবু, মুসফিকুর রহমান, ছাত্রলীগের সভাপতি আশিকউজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক আজমীর হোসেন, সাংগঠনিক রুহান হোসেন প্রমূখ ।

এরপর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও পরিষদের উদ্যোগে শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এছাড়া কল্যাণপুর সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও যুববান্ধব সংঘের উদ্যোগে শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এসময় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও তার সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলা দাবি আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের উপর গুলি চালায় তৎকালীন পুলিশ। এতে শহিদ হন রফিক, জব্বার, বরকত, শফিউরসহ নাম না জানা আরো অনেকে। পাকিস্তান শাসনামল থেকেই দিনটিকে শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করে আসছে বাঙালি জাতি। ভাষার দাবিতে বিশ্বের প্রথম কোনো জাতি হিসেবে জীবন দেওয়ায় ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ইউনেস্কো। ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর একটি সভায় ১৮৮টি রাষ্ট্রের সম্মতিতে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় এবং ঘোষণা করা হয়। ২০০০ সাল থেকে সারা বিশ্বে দিবসটিকে যথাযথ মর্যাদায় পালন করছে বিভিন্ন ভাষাভাষী জনগোষ্ঠী।

#