প্রাণঘাতী অস্ত্র কাঁধে ঝুলিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে তরুণী !


356 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
প্রাণঘাতী অস্ত্র কাঁধে ঝুলিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে তরুণী !
মে ১৮, ২০১৮ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে পড়াশুনার পাঠ চুকিয়ে বিদায় নেওয়ার দিন কাঁধে অস্ত্র ঝুলিয়ে ক্যাম্পাসের অনুষ্ঠানে হাজির হওয়ায় এক তরুণীকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে যুক্তরাষ্ট্রে।

ওহিয়ো অঙ্গরাজ্যের কেন্ট স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করার পরদিনই এ সংক্রান্ত এক অনুষ্ঠানে এ বেশে উপস্থিত হয়েছিলেন ক্যাতলিন বেনেত।

২২ বছর বয়সী এই তরুণী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে অস্ত্র কাঁধে ঝোলানো অবস্থায় ক্যাম্পাসে হেঁটে যাওয়া একটি ছবি পোস্ট করার পরই তা ছড়িয়ে পড়ে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এআর-১০ সেমি-অটোমেটিক রাইফেল কাঁধে ঝুলিয়ে হাতে সমাবর্তনের হ্যাট নিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন বেনেত। এর পাশেই বিশ্ববিদ্যালয়ের নামফলক।

ওই ছবি পোস্ট করে তরুণী লিখেছেন, ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী, অধ্যাপক এবং চাকরিজীবীদের প্রাণাঘাতী অস্ত্র বহনের ব্যাপারে যে নিষেধাজ্ঞা রয়েছ তারই প্রতিবাদ করেছেন তিনি।

১৯৭০ সালের একটি দাঙ্গার কথা উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, ক্যাম্পাসে এই জায়গাটাতেই তখন চারজন নিরস্ত্র ছাত্রকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল।

বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সবার ওপর অস্ত্র বহনের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে অথচ যারা অতিথি তাদের ওপর এ ব্যাপারে বিধিনিষেধ নেই- সে প্রশ্নও তুলেছেন বেনেত। দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে প্রকাশ্যে অস্ত্রবহন বৈধ।

সদ্য স্নাতক সম্পন্ন করা এই শিক্ষার্থীর টুইটটি এরই মধ্যে ৪ হাজার ৮০০ বার রিটুইট হয়েছে; লাইক পড়েছে ১৯ হাজারের ওপর। অবশ্য ইতিবাচক ও নেতিবাচক দুই ধরনের মতই আসছে এ ঘটনায়।

এক ফেসবুক পোস্টে বেনেত বলেছেন, নিজেক নিরাপত্তার দেওয়ার দায়িত্ব নিজেরই।