প্রয়োজনে আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে: তারেক প্রসঙ্গে কাদের


346 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
প্রয়োজনে আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে: তারেক প্রসঙ্গে কাদের
নভেম্বর ২০, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের যে সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন, সেটা আইনের সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন। হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা আছে তারেক রহমান কোনো প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন না। এ ব্যাপারে প্রয়োজনে আলোচনা করে আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে।

সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

‘ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাক্ষাৎকার নিয়ে তারেক রহমান আচরণবিধি লঙ্ঘন করেননি’- নির্বাচন কমিশন সচিবের এমন বক্তব্যের বিষয়ে কাদের বলেন, এ প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশন কী বলেছে, তা আনুষ্ঠানিকভাবে জানি না। তাই কমিশন সচিবের বক্তব্য নিয়ে কোনো মন্তব্য করবো না।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে বিএনপি আগামী নির্বাচন বানচালের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে একটি দল নির্বাচন বানচালের পাঁয়তারা করছে। সারাদেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ বিরাজ করছিল। তারা পরিকল্পিতভাবে মনোনয়ন সংগ্রহের নামে সারাদেশ থেকে তাদের নেতাকর্মীর পাশাপাশি সন্ত্রাসীদের এনে পুলিশের ওপর হামলা করেছে, গাড়ি ভাঙচুর করেছে। ২০ জনের মতো পুলিশ আহত হয়ে হাসপাতালে গেছেন। এতদিন যারা নির্বাচনের পরিবেশ পরিবেশ বলে চিৎকার করছিল, তফসিল ঘোষণার পর তারাই পরিবেশ নষ্ট করছে।

কাদের বলেন, বিএনপি আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি মনোনয়ন ফরম বিক্রির ভুয়া প্রতিযোগিতায় লিপ্ত। আওয়ামী লীগের চার হাজার মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। এখন বিএনপি তার চেয়ে বেশি বিক্রি দেখাতে চায়। আর এজন্য তারা চিহ্নিত দাগী সন্ত্রাসীদের এক করে ফরম বিক্রি দেখাচ্ছে। তারা দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়। চ্যালেঞ্জ করে বলছি, তারা মনোনয়ন ফরম বিক্রির ভুয়া সংখ্যাতত্ত্ব দিচ্ছে।

বিএনপির প্রার্থীদের গ্রেপ্তার কিংবা হয়রানি করা হচ্ছে- দলটির নেতাদের এমন অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যাদের ধরা হচ্ছে তারা অপরাধী। কোনো না কোনো অপরাধ করেছে। বিএনপির বেশিরভাগ নেতাকর্মীই অপরাধী।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে পত্র-পত্রিকায় যেসব খবর প্রকাশ হয়েছে, সেগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। আমরা দলের পক্ষ থেকে এখনও কাউকে মনোনয়ন দেইনি, কাউকে মনোনয়নের নিশ্চয়তাও দেওয়া হয়নি। জোটগতভাবে মনোনয়ন দেওয়া হবে। যারা মনোনয়ন পাওয়ার দাবি করছেন, কিংবা মনোনয়ন পেয়েছেন অথবা বাদ পড়েছেন বলে যেসব খবর আসছে সব ভুয়া ও মনগড়া। আওয়ামী লীগ কাউকে মনোনয়ন দেয়নি, দিয়েছে মিডিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মাহবুবউল আলম হানিফ, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এ কে এম এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, সুজিত রায় নন্দী, প্রকৌশলী আবদুস সবুর, দেলোয়ার হোসেন, ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, আক্তার পপি প্রমুখ।