বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলারসহ ৬১ ভারতীয় জেলে আটক, ১ জেলের আত্মহত্যা


463 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলারসহ ৬১ ভারতীয় জেলে আটক, ১ জেলের আত্মহত্যা
অক্টোবর ১, ২০১৫ খুলনা বিভাগ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :

বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অভিযোগে পাঁচটি ফিশিং ট্রলারসহ ৬১ ভারতীয় জেলেকে অটক করেছে নৌবাহিনী। এসব ফিশিং ট্রলার থেকে শিকার নিষিদ্ধ তিন হাজার ১০০টি মা ইলিশ জব্দ করা হয়েছে।

আটককৃত জেলেদের মঙ্গলবার সকালে মংলায় আনার পথে ট্রলারের বাথরুমে ঢুকে সঞ্জয় শামন্ত (৩৫) নামের এক জেলে গলায় গামছার ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত সঞ্জয় শামন্তের লাশ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে। সঞ্জয় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার কাকদ্বীপ এলাকার প্রফুল্ল শামন্তের ছেলে।

মংলা থানার অফিসার ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, সোমবার রাতে বঙ্গোপসাগরে বাগেরহাটের সুন্দরবন উপকূলের হিরণপয়েন্টের অদূরে ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকার করছিল ভারতীয় জেলেরা। এ সময় ওই এলাকায় টহলরত বিএনএস মংলা নৌঘাটির জাহাজ বিএনএস কর্ণফুলি ভারতীয় পাঁচটি ট্রলারসহ জেলেদের চ্যালেঞ্জ করে। নৌবাহিনীর টহল জাহাজ দেখে ভারতীয় জেলেরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে নৌবাহিনীর সদস্যরা তাদের আটক করে।

এ সময় আটককৃত ফিশিং ট্রলারে তল্লাশি চালিয়ে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত শিকার নিষিদ্ধ তিন হাজার ১০০টি মা ইলিশ জব্দ করা হয়। আটক ভারতীয় জেলেদের মঙ্গলবার দুপুরে বাগেরহাটের দিগরাজে বিএনএস মংলা নৌঘাটিতে আনার পথে সঞ্জয় শামন্ত (৩৫) নামে এক ভারতীয় জেলে গলায় গামছার ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। আটককৃতদের মঙ্গলবার দুপুরে মংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ ও বেআইনিভাবে মাছ শিকারের অভিযোগে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের হয়েছে। আটক ভারতীয় জেলেদেরকে বুধবার আদালতে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছে মংলা থানা পুলিশ। আটক ট্রলারগুলো হলো- এফবি ত্রিপদী, এফবি সত্য নারায়ণ, এফবি দাখিনা শহর, এফবি লক্ষী নারায়ণ ও এফবি প্রদীপ। আটক সকল জেলের বাড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার কাকদ্বীপ এলাকায়।