বটিয়াঘাটার ইউএনও কে প্রত্যাহারের দাবীতে খুলনায় সাংবাদিকদের মানববন্ধন


488 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বটিয়াঘাটার ইউএনও কে প্রত্যাহারের দাবীতে খুলনায় সাংবাদিকদের মানববন্ধন
সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ওয়াহেদ-উজ-জামান, খুলনা :
বটিয়াঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু. বিল্লাল হোসেন খান কর্তৃক সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলা, নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা মামলা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে খুলনার সাংবাদিক সমাজ। সোমবার বেলা ১১টায় খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে)’র উদ্যোগে মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (এমইউজে)সহ খুলনার ৯ উপজেলা থেকে ১০টি প্রেস ক্লাবের সদস্যরা এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করে।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে)’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ।

এসময়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা বলেন, বটিয়াঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু. বিল্লাল হোসেন খান সাংবাদিকদের নামে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের করে নির্যাতন চালাচ্ছে। বিল্লাল হোসেন খান সাম্প্রদায়িকতাকে উস্কানি দিতে একজন হিন্দু শিক্ষককে প্রকাশ্যে লাঞ্ছিত করেন।
এ ঘটনায় উপজেলায় মানববন্ধন হলে সাংবাদিকরা ওই সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশ করলে তাদের বিরুদ্ধে একে একে মামলা ও জরিমানা করে আসছে।
তিনি উদ্দেশ্যমূলকভাবে মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক এনায়েত আলীকে সংবাদ প্রকাশের জন্য ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এভাবে বটিয়াঘাটা প্রেস ক্লাব সভাপতি শেখ আব্দুল হামিদকে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। যা ইতিমধ্যে মিথ্যা প্রমানিত হয়েছে।
শাহিন বিশ্বাসকে ১৩ মাসের জেল দিয়েছে। ওই মামলার নথি এখনও আদালতেপ্রেরণ করে নি। ফলে শাহিন মামলায় জামিন করতে পারছেনা। মামলা ও জরিমানার ভয়ে বটিয়াঘাটা উপজেলা এখন সাংবাদিক শুন্য হয়ে পড়েছে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিল্লাল হোসেন খানকে খুলনা থেকে প্রত্যাহার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।
খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য কৌশিক দে বাপী’র পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, দৈনিক জন্মভূমির প্রধান সম্পাদক ওয়াদুদুর রহমান পান্না, প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শেখ আবু হাসান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন, বিএফইউজের সহ সভাপতি মামুন রেজা, নির্বাহী সদস্য হুমায়ূন কবির, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক হাওলাদার, এমইউজের সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আব্দুল মালেক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী শামীম আহমেদ, নির্বাহী সদস্য মোঃ সামছুজ্জামান শাহীন, দৈনিক জনকন্ঠের ব্যুরো প্রধান অমল সাহা, দৈনিক ইত্তেফাকের স্টাফ রির্পোটার এনামুল হক নবাব, যুগান্তরের হেদায়েত হোসেন মোল্লা, মাছরাঙা টিভির সিনিয়র রির্পোটার মোস্তফা জামাল পপলু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান সাগর, মহানগর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, এনটিভির ব্যুরো প্রধান আবু তৈয়ব, মোঃ সোহরাব হোসেন, খুলনা প্রেস ক্লাবের সদস্য দেবব্রত রায়, দৈনিক জন্মভূমির নুরুল হাসান লিটু, দেশ টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান আমিরুল ইসলাম, এস এ টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান সুনীল দাস, দৈনিক দেশ সংযোগের নির্বাহী সম্পাদক খোন্দকার আবু নুরাইন মাকুল, এশিয়ান টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান মিজানুর রহমান মিল্টন, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের ফরিদ রানা, জাহাঙ্গীর হোসেন, উত্তম কুমার, প্রবীর বিশ্বাস, আরটিভি’র ব্যুরো প্রধান বাবুল আক্তার, জিটিভি’র ব্যুরো প্রধান লিয়াকত হোসেন, তিতাস চক্রবর্তী, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সভাপতি রকিবুল ইসলাম মতি, সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম, ফুলতলা উপজেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি মো: মোস্তাফিজুর রহমান, কয়রা প্রেস ক্লাবের সভাপতি হারুন অর রশিদ, ডুমুরিয়া প্রেস ক্লাবের শেখ মাহতাব হোসেন, রূপসা উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি তরুণ চক্রবর্তী বিষ্ণু, সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম ডালিম, দাকোপ সভাপতি আজগর আলী সাব্বির, গোলাম মোস্তফা, মোঃ নুরুজ্জামান, বটিয়াঘাটা প্রেস ক্লাবের সভাপতি শেখ আব্দুল হামিদ, উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইন্দ্রজিত, পাইকগাছার তৃপ্তি রঞ্জন সেন, ¯েœহেন্দু বিকাশ, কপিলমুনি প্রেস ক্লাবের সভাপতি আব্দুস সালাম, মানবাধিকার কর্মী আব্দুল হালিম, কৃষক নেতা মোস্তাফিজুর রহমান, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের ইয়াছীন আরাফাত রুমী, ইনডিপেন্ডডেন্ট টেলিভিশনের অভিজিৎ পাল, উত্তম কুমার, মিজানুর রহমান মিজান, আল মাহামুদ প্রিন্স, মিলন হোসেন, জয়নাল ফারাজী, তরিকুল ইসলাম, শেখ হামিদুল হক, এটিএন বাংলার আবু সাঈদ, মাছরাঙা টেলিভিশনের শাহজালাল মোল্লা মিলন, দেশ টিভির হাসান আল মামুন আব্দুল্লাহ, যমুনা টেলিভিশনের আমির সোহেল, দৈনিক তথ্যের এস এম নুর হাসান জনি, রাসেল, সাগর সরকার, চ্যানেল ৯-এর আমিনুল ইসলাম নিউটন, জয়নাল ফারাজী, ছাত্রলীগ নেতা মুজিবুর রহমান মুজিবসহ সকল উপজেলার বিভিন্ন স্তরের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া খুলনা ওর্য়ার্কিং জার্নালিস্ট ইউনিটি, খুলনা টিভি রির্পোর্টার্স ইউনিটি, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন এ মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন।