বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী গীতা সেন আর নেই


561 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী গীতা সেন আর নেই
জানুয়ারি ১৭, ২০১৭ ফটো গ্যালারি বিনোদন
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বাংলা চলচ্চিত্র শিল্পের কালজয়ী নির্মাতা মৃণাল সেনের স্ত্রী অভিনেত্রী গীতা সেন আর নেই। সোমবার দুপুরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। এসময় তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। মাসখানেক আগে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয় বর্ষীয়ান এ অভিনেত্রীর। বেশ কিছুদিন কোমায়ও ছিলেন তিনি।

গীতা সেনকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন কলকাতার মাধবী মুখোপাধ্যায়, গৌতম ঘোষ, মমতাশঙ্কর, অঞ্জন দত্তের মতো খ্যাতনামা চলচ্চিত্র শিল্পীরা। কেওড়াতলা শ্মশানে গীতা সেনের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

ভারতের সংবাদমাধ্যম আজকাল জানায়, ১৯৩০ এর ৩০ অক্টোবর গীতা সেনের জন্ম। বাবা দ্বিজেন্দ্রনাথ সোম ছিলেন স্বাধীনতা-সংগ্রামী। মায়ের নাম হাসি সোম। ছোটবেলা থেকেই নাচে-গানে পারদর্শী ছিলেন গীতা সেন। ছাত্রী থাকাকালেই অভিনয় করেন ‘দু ধারা’ ছবিতে। ছবির গল্পলেখক ছিলেন মৃণাল সেন। ১৯৫৩ সালে ২৩ বছর বয়সে মৃণাল সেনের সঙ্গে গীতা সেনের বিয়ে হয়।

গীতা সেনের উৎসাহেই মৃণাল সেন চলচ্চিত্র পরিচালনায় আসেন ১৯৫৫ তে। তৈরি করেন ‘‌রাতভোর’‌। ছবিটিতে অভিনয় করেন উত্তম কুমার, সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়। ওই সময়  উৎপল দত্তর সঙ্গে অভিনয় করতেন গীতা সেন। ‘মার্চেন্ট অফ ভেনিস’ এ তিনি জেসিকার চরিত্রে অভিনয় করেন।

উৎপল দত্ত ও ঋত্বিক ঘটকের যৌথ পরিচালনায় ‘‌বিসর্জন’‌ নাটকে অপর্ণার চরিত্রে গীতা সেনের অভিনয় প্রচুর প্রশংসা পায়। মৃণাল সেনের ছবিতে গীতা সেনের প্রথম অভিনয় ১৯৭২ সালে ‘’কলকাতা ৭১’এ। তারপর ‘একদিন প্রতিদিন’, ‘কোরাস’, ‘খারিজ’, ‘খণ্ডহর’, ‘মহাপৃথিবী’ ছবিতে গীতা সেনের অসামান্য অভিনয় মুগ্ধ করে দর্শকদের। তার অভিনয়ের গভীরতার ছাপ আছে প্রতিটি ছবিতেই। বেছে ছবি করেছেন। নাটক থেকে সিনেমা, সব ক্ষেত্রেই প্রাধান্য দিয়েছেন নিজস্বতাকেই।