বাগেরহাট সংবাদ ॥ মোরেলগঞ্জের পুলের বেহাল দশা


635 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বাগেরহাট সংবাদ ॥ মোরেলগঞ্জের পুলের বেহাল দশা
আগস্ট ২৫, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট :
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার ঢুলিগাতী এমটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দু’টি পুলের ভগ্নদশার কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। প্রতিদিন এ পুল দিয়ে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয়। পুলটি নির্মাণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসিনতায় জনসাধারণের ভোগান্তি আরো বেড়ে গেছে।

উপজেলার তেলিগাতি ইউনিয়নের জনগুরুত্বপূর্ণ ঢুলিগাতী বাজার সংলগ্ন খাল ও পার্শ্ববর্তী সংযোগ খালের উপর নির্মিত পুলটি দীর্ঘ ৬ মাস যাবৎ ভগ্নদশায় পড়ে আছে। এ দু’টি পুল দিয়ে ঢুলিগাতী এমটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অর্ধ সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রী পারপার করে। এলাকাবাসী পুলটি জোড়াতালি দিয়ে কোনমতে টিকিয়ে রাখার ব্যর্থ চেষ্টা করে । এ খালের পার্শ্ববর্তী সংযোগ খালের পুলটিওর করুন দশা। দু’পুলের সংযোগে রয়েছে ঢুলিগাতী এমটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ।

অপরপাড়ে রয়েছে তেলিগাতি ইউনিয়ন পরিষদ, তৌশিল অফিস, ঢুলিগাতী বাজার, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র সহ ঢুলিগাতী বাজার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। রয়েছে দক্ষিন তেলিগাতী আলিম মাদ্রাসা, মসজিদভিত্তিক পাঠাগার। এ পুল থেকে শিশুদের হাত ধরে অভিভাবকদের পারাপার করতে হয়। পাশাপাশি এ পুল দিয়ে এলাকার শত শত লোক ঝুঁকি নিয়ে পারপার করে।

তেলিগাতি এমটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পরিমল কান্তি তরফদার বলেন, পুলটি পুনঃনির্মানের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

তেলিগাতি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোরশেদা আকতার জানান, এ পুলটি সংস্কারের জন্য পরিষদের এলজিএসপি থেকে অর্থ বরাদ্ধ করা হয়েছে। শীঘ্রই সংস্কারের কাজ শুরু হবে।
###

মোরেলগঞ্জে শিক্ষককে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট :
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে নাসির হাওলাদার(৪০)নামে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষককে পিটিয়ে সাড়ে তিন লাখ টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহঃবার বেলা ১২টায় জিউধরা ইউনিয়নের পাশখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহতাবস্থায় ওই প্রধান শিক্ষককে বিকেল ৪টায় মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

z2
ঠাকুরাইনতলা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা সেকেন্দার আলী হাওলাদারের ছেলে নাসির হাওলাদার ৯৫নং বরইতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নাসির হাওলাদার, তার স্ত্রী লাইজু বেগম ও ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা রুবানা আক্তার জানান, বিদ্যালয়ের কাজে মোরেলগঞ্জের দিকে আসার পথে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের ছেলে পারভেজসহ ৫/৬ জনের একটি দল নাসিরের উপর হামলা চালায়। তারা নাসিরকে পিটিয়ে জখম করে সাড়ে তিন লাখ টাকা ও বিদ্যালয়ের অনেক কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়।
###

মোড়েলগঞ্জে প্রবল বর্ষণে ভেসে গেছে মৎস্য ঘের

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট :
বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে গত তিন দিনের প্রবল বর্ষণ ও জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মোড়েলগঞ্জ পৌরসভা সদরসহ ১৬ ইউনিয়নে পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। ভেসে গেছে কয়েক হাজার মৎস্য ঘের। আমন বীজতলার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে কৃষকদের।

জানা গেছে, উপজেলা সদরসহ প্রবল বর্ষণ ও পানির অস্বাভাবিক বৃদ্ধির ফলে খাউলিয়া, জিউধরা সন্ন্যাসী, পাঠামারা, বারইখালী, সুতালড়ী, বদনীভাঙ্গা, শ্রেণীখালী, ঘষিয়াখালী, পঞ্চকরণ, ফুলহাতা কুমারিয়াজোলা, কুমারখালী, বানিয়াখালীসহ বেশ কিছু নিম্নাঞ্চল, পুকুর, মৎস্য  ঘের, কৃষিক্ষেত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারী অফিস, এলাকার রাস্তাঘাট সবই প্রায় ১৫ ঘন্টা তলিয়ে রয়েছে। এলাকার খাল বিলগুলো অপরিকল্পিতভাবে বন্ধ করে রাখায় পানগুছি নদীর তীরবর্তী উপকূলীয় এ উপজেলার মূল শহরের উপর দিয়ে বইছে পানির প্রবাহ। ঐতিহ্যবাহী খ্যাত জেলার মোড়েলগঞ্জ উপজেলা সদর বাজারের কয়েক হাজার ব্যাবসায়ীকে জোয়ার-ভাটার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হচ্ছে এবং ব্যাহত হচ্ছে সর্ব সাধারণের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা। ড্রেনের ময়লা আবর্জনা জোয়ারের পানির সাথে মিশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছে গোটা শহর জুড়ে।

এ ব্যাপারে বানিয়াখালী গ্রামের মৎস্য ঘের ব্যবসায়ী শিক্ষক বিকাশ হালদার জানান, ২বিঘা সাদা মাছের  ঘের ও আমন বীজতলা তলিয়ে অর্ধ লক্ষাধীক টাকার ক্ষতি হয়েছে। উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, চলতি আমন মৌসুমে ধানের বীজতলাসহ বিভিন্ন সবজী ও তরিতরকারিসহ অন্যান্যে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। মৎস্য  ঘের, পুকুর ডোবা ভেসে গিয়ে মাছ চাষিদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলের কাচা-পাকা রাস্তা মাটি ভেরীবাঁধ ভেঙে গিয়ে চলাচল অনুপোযোগী হয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অপরদিকে ঘের ব্যবসায়ী জোকা গ্রামের ফারুক শেখ জানান, আমার একটি ১০ বিঘার ঘের সাদা মাছ, গলদা ও চিংড়ি মাছ ভেসে গিয়ে প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমি মৎস্য কর্মকর্তাসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। এছাড়াও তেলীগাতি, পঞ্চকরণ, রামচন্দ্রপুরে বীজতলা পচে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
###

বাগেরহাটে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে খাল ও জলাশয়ের বাঁধা অপসারণ

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট :
বাগেরহাটের শরণখোলায় উপজেলা মৎস্য বিভাগের উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকার খাল ও জলাশয়ে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে বিভিন্ন স্থানে পুুঁতে রাখা বুচনা ও বাঁধা জাল অপসারণ করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত কয়েকটি বাঁধা জালসহ ৩৭টি বুচনা একই দিন বিকেলে আগুনে ধ্বংস করা হয়।

উপজেলা মৎস্য বিভাগ জানায়, গত ২১, ২২ ও ২৩ আগষ্ট উপজেলার দক্ষিণ রাজাপুর, মালিয়া, বাংলাবাজার, খাদা, উত্তর তাফালবাড়ি, বকুলতলা, উত্তর সাউথখালি ও তালতলিসহ বিভিন্ন এলাকার খাল ও জলাশয়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ অতুল মন্ডলের  নেতৃতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বিভিন্ন খাল ও জলাশয় থেকে একাধিক বাঁধা জাল ও বুচনা অপসারণের পাশাপাশি এলাকাবাসী যাতে নতুন করে কোন খাল ও জলাশয়ে অবৈধভাবে ভোগ করতে না পারে সেজন্য মাইকিং এর মাধ্যমে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। যারা এ আদেশ অমান্য করে মাছ আহরণ করবেন ভবিষ্যতে তাদের বিরুদ্ধে জেল- জরিমানার পদক্ষেপ নেয়া হবে। এছাড়া সাউথখালী ইউনিয়নের সোনাতলা, রায়েন্দা ইউনিয়নের খাদা, রাজাপুর ও রায়েন্দাসহ উপজেলার কয়েকটি খালে কার্প জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। ওই সকল খালের মাছ যাতে কেউ আহরণ না করে সেজন্য জনসাধারণকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অতুল মন্ডল জানান, শরণখোলা উপজেলার মৎস্য সম্পদকে সোনালী দিনে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য উপজেলার বিভিন্ন খালে কার্প জাতীয় মাছ অবমুক্ত করা হয়েছে। এ সময়ে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, শরণখোলা থানা পুলিশের এ. এস. আই শাহারিয়ার  ও উপজেলা ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা খন্দকার শহিদুল রহমানসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।
####

বাগেরহাটের কচুয়ার পল্লীতে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট :
বাগেরহাটের কচুয়ার পল্লীতে গৃহ বধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়াগেছে। এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার চান্দেরখোলা গ্রামের সৈয়াদ আলী পাইকের ছেলে শহিদ পাইক(৩৫) তার স্ত্রী রাজীয়া বেগম(২৫)কে ২২ আগষ্ট পারিবারিক কলহের জের ধরে পাষন্ড স্বামী শহিদ পাইক বেধড়ক মারপিট করলে সে গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে ঘটনাকে ধামাচাপা দেবার জন্য মুখের মধ্যে বিষ দিয়ে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং সেখানে তার মৃত্যু হয়। ইতিপুর্বে  উক্ত শহিদ আরো দুটি বিবাহ করেছিল তার মধ্য একজনকে পুড়িয়ে হত্যা করে এবং আর একজনকে মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। নিহত রাজীয়া বেগম বাগেরহাট সদর উপজেলার মরগারহাট এলাকার আঃ জব্বার শেখের কন্যা। উক্ত ঘটনায় শহিদ পাইককে বাগেরহাট সদর থানায় পুলিশ আটক করেছে ।###