বালুবোঝাই বাল্কহেডের ধাক্কায় জেটিঘাট বিধ্বস্ত


180 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বালুবোঝাই বাল্কহেডের ধাক্কায় জেটিঘাট বিধ্বস্ত
নভেম্বর ৪, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

কক্সবাজারের পেকুয়ায় বালুবোঝাই বাল্কহেডের ধাক্কায় জেটিঘাট ভেঙে পড়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম উজানটিয়া করিমদাদ মিয়া চৌধুরী জেটিঘাটে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, একটি বালুবোঝাই বাল্কহেড সোনারগাঁও থেকে কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুস্কুলের দিকে যাচ্ছিল। পথে এমবি ফাহাদ-আহাদ পরিবহন-১ (কে-১৯৯৪৭) নামের বাল্কহেডটি করিমদাদ মিয়ার ঘাট পার হওয়ার সময় পার্শবর্তী জেটিঘাটে ধাক্কা দেয়। এতে জেটির দুই তৃতীয়াংশ ভেঙে পড়ে। বাল্কহেডের আঘাতে বিএডব্লিউটিএর মালিকানাধীন ঘাটটির মূল ফাউন্ডেশনেও বড় আকারের ফাটল দেখা দিয়েছে।

উজানটিয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য এহছানুল হক জানান, রাতে বিকট শব্দ শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে বাল্কহেডের শ্রমিকদের উদ্ধার করে।

জেটিঘাটের ইজারাদার সাজ্জাদ ট্রের্ডাসের মালিক সাজ্জাদুল ইসলাম জানান, পিলারসহ জেটির অধিকাংশ ভেঙে পড়ায় নৌযান চলাচলে ঝুঁকি দেখা দিয়েছে। জেটিটি বিধ্বস্ত হওয়ায় টোল আদায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

বাল্কহেডের সারেং মো. সেলিম জানান, খুরুস্কুলে নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে পাউবোর ব্লক তৈরির কাজ চলছে। সেখানে বালি নিয়ে যাচ্ছিলেন তারা।

স্থানীয় লবণ ও চিংড়ি ব্যবসায়ী উজানটিয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি রেজাউল করিম চৌধুরী মিন্টু বলেন, এই করিমদাঁদ মিয়ার ঘাট দিয়ে উজানটিয়ার উৎপাদিত লবন চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। তাছাড়াও দেশের অন্যতম কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের কাজে জড়িত লোকজনও যাতায়াতে এ ঘাট ব্যবহার করছেন।

তিনি বলেন, ঘাটটি রক্ষণাবেক্ষণে যথেষ্ট অবহেলা ছিল। এটি রক্ষায় আমরা বিভিন্ন জায়গায় তদবির করেও শেষ রক্ষা হলো না।

এলজিইডির পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাহেদুল আলম চৌধুরী বলেন, জেটি ভেঙে পড়ার খবর পাইনি। তবে খুব শিগগির জেটিটি পুণ:নির্মাণ করা হবে।