বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলেকে আটকের খবরে বাবার মৃত্যু!


342 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলেকে আটকের খবরে বাবার মৃত্যু!
এপ্রিল ১৫, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রকে আটকের খবর পেয়ে তার বাবার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষার্থীদের ভাষ্য, প্রক্টরের নির্দেশে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র দীপু চন্দ্র রায়কে আটকের খবরে তার বাবা অনীল চন্দ্র রায় হৃদরোগে মারা গেছেন। পরে পুলিশ দীপুকে ছেড়ে দেয়।

গত শুক্রবারের এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে তাৎক্ষণিকভাবে বিক্ষোভ করেছে। প্রক্টরের অপসারণ দাবিতে রোববার ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

জানা যায়, শুক্রবার ক্যাম্পাসে প্রক্টর মীর তামান্না ছিদ্দিকার সঙ্গে খারাপ আচরণের অভিযোগে দীপু চন্দ্র রায়কে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। বন্ধুরা দীপুর গ্রামের বাড়ি নীলফামারীতে তার বাবা অনীল চন্দ্র রায়কে এ খবর দেন। ছেলেকে পুলিশ আটক করেছে এমন খবরে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। দীপুর বাবার মৃত্যু সংবাদ ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এ ব্যাপারে দীপু চন্দ্র রায় বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই প্রক্টরের নির্দেশে পুলিশ আমাকে ৫ ঘণ্টা আটকে রাখে। এ খবর পেয়ে আমার বাবা হৃদরোগে মারা যান। এর দায়ভার প্রক্টরকে নিতে হবে। আমি এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

তবে প্রক্টর মীর তামান্না ছিদ্দিকা সাংবাদিকদের বলেন, ‘দীপু আমাকে উত্ত্যক্ত করায় তাকে পুলিশে দিই। তার বাবার মৃত্যু সংবাদ শুনে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।’

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এরশাদ আলী জানান, প্রক্টরের নির্দেশে দীপুকে আটক এবং পরে ছেড়ে দেওয়া হয়।