বিষন্নতার কিছু লক্ষণ, কাটাতে যা করবেন


81 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বিষন্নতার কিছু লক্ষণ, কাটাতে যা করবেন
অক্টোবর ১৭, ২০২১ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

ডিপ্রেশন বা বিষন্নতা একটি বৈশ্বিক অসুস্থতা। গোটা বিশ্বের প্রায় ৪ শতাংশ মানুষের বিষন্নতা রয়েছে। চিকিৎসার মাধ্যমে এই অসুস্থতা দূর করা সম্ভব।

বিষন্নতা কী?
ডিপ্রেশন বা বিষন্নতা যেকারও হতে পারে এবং এটি কোনো দুর্বলতার লক্ষণ নয়। এটা একধরনের অসুস্থতা, যার লক্ষণ হলো- দীর্ঘ সময় মন খারাপ থাকা। নিত্যদিনের কাজ যা আপনি উপভোগ করতেন তা করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলা বা সেসব কাজ করা কঠিন মনে হওয়া।

বিষন্নতার আর কী কী লক্ষণ আছে?

বিষন্নতায় আক্রান্ত মানুষদের মধ্যে আরও অনেক লক্ষণ থাকতে পারে। যেমন তারা সারাক্ষণ দুর্বল অনুভব করতে পারে। তাদের খাদ্যের রুচি চলে যেতে পারে। ঘুম আগের চেয়ে কম বা বেশি হতে পারে। মনোযোগে বিঘ্ন ঘটতে পারে। সিদ্ধান্তহীনতা দেখা দিতে পারে। এমনকি নিজেকে মূল্যহীন মনে হতে পারে। মারাত্মক বিষন্নতা কাউকে নিজের ক্ষতি করা বা আত্মহত্যায়ও উৎসাহিত করতে পারে।

বিষন্নতা রোধের উপায় কী?

বিষিন্নতার চিকিৎসা রয়েছে। একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে এটা দূর করা সম্ভব হতে পারে। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধও গ্রহণ করার প্রয়োজন হতে পারে।

বিষন্নতা অনুভব করলে কী করবেন?

বিষন্নতা অনুভব করলে আপনি এমন কারও সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে পারেন যাকে আপনি বিশ্বাস করেন। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, অনেক সময় শুধু কথা বলেও বিষন্নতা কাটানো যেতে পারে।

বিষন্নতা থেকে দূরে থাকতে আর কী করা যেতে পারে?

আপনার ভালো লাগে এরকম কিছু কর্মকাণ্ড নিয়মিত করতে পারেন। পাশাপাশি বন্ধুবান্ধব এবং পরিবারের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখলে ভালো। খাওয়াদাওয়া ও ঘুমের ক্ষেত্রেও একটি রুটিন অনুসরণ করতে পারেন।

ব্যায়াম করলে কী বিষন্নতা কমে?

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, নিয়মিত ব্যায়াম শরীরের জন্য ভালো। বিষন্ন মনে হলে ইচ্ছা না থাকলেও অন্তত বাইরে গিয়ে হাঁটাহাটি করুন। আর বিষন্নতা কাটাতে মদ্যপান কোনো সমাধান নয়। এলকোহল বিষন্নতা আরও বাড়িয়ে দিতে পারে।

আত্মহত্যার ইচ্ছা জাগলে করণীয় কী?

আপনার মধ্যে যদি আত্মহত্যার ইচ্ছা জাগে তাহলে আপনার বিশ্বস্ত কারও সঙ্গে যোগাযোগ করুন, যাতে তিনি আপনাকে এই চিন্তা থেকে দূরে যেতে সহায়তা করতে পারেন। জরুরি ফোন নম্বরে ফোনও করতে পারেন।

সূত্র : ডয়চে ভেলে, ডব্লিউএইচও