বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে সাতক্ষীরায় গ্রাম পুলিশের মানববন্ধন কর্মসূচী পালন


1093 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে সাতক্ষীরায়  গ্রাম পুলিশের  মানববন্ধন কর্মসূচী পালন
অক্টোবর ১৫, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

গোলাম সরোয়ার :
গ্রাম পুলিশদের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীর ন্যায় বেতন স্কেল ঘোষনা ও বাস্তবায়নসহ চার দফা দাবিতে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন সাতক্ষীরা জেলা শাখা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচীতে জেলার শতাধিক গ্রাম পুলিশ অংশ গ্রহণ করে। পরে একই দাবিতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারন সম্পাদক জি এম কামরুজ্জামান, সহ-সভাপতি মোঃ আলী হোসেন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ আব্দুর রউফ, সাংগঠনিক সম্পাদক ঋষি কান্ত দাশ, প্রচার সম্পাদক মোঃ জালাল উদ্দিন, সদর থানা সভাপতি মোঃ শহিদুল ইসলাম, কার্যকরি সদস্য রেজাউল ইসলাম প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে সারা দেশে ৪৬ হাজার ৮৭০ জন গ্রাম পুলিশ স্থানীয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় বৃটিশ আমল থেকে বিরামহীন ভাবে কাজ করে আসছে। কিন্তু স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ কর্মচারী হওয়া সত্বেও অদ্যবধি তাদের কোন বেতন স্কেল, অবসর কালিন ভাতা, রেশনিং ব্যবস্থাসহ সরকারে অন্যান্য সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হয় না। একজন গ্রাম পুলিশ যে বেতন পায় এই দ্রব্য মূল্যেরে বাজারে তা দিয়ে কোন ভাবেই সে তার সংসার চালাতে পারে না। অথচ গ্রাম পুলিশ আইন শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি রাতদিন প্রায় ৭০ রকমের কাজের দায়িত্ব পালন করে থাকে। তারা আরো বলেন, ৫৬ বছর পর্যন্ত চাকুরি করে অবসরের সময় তাদেরকে শুন্য হাতে বিদায় নিতে হয়। ফলে অবসরের পরে তাদেরকে মানবেতর জীবন যাপন করতে হয়। তারা না পারে সংসার চালাতে, না পারে ছেলে মেয়েদের লেখা পড়ার খরচ যোগাতে। অর্থের অভাবে শেষ জীবনে অনেকে বিনা চিকিৎসায় মারা যায়। ১৪৬ ধরে বাংলাদেশের গ্রাম পুলিশের জীবন চলছে এভাবেই।

বক্তারা গ্রাম পুলিশদের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীর ন্যায় বেতন স্কেল ঘোষনাসহ বাস্তবায়নের ব্যবস্থা, অবসরকালিন ভাতা প্রদান, পুলিশ ও আনসার বাহিনীর ন্যায় রেশনিং এর ব্যবস্থা গ্রহণ ও ২০১৩ সালে প্রণিত গ্রাম পুলিশ বাহিনীর খসড়া বিধিমালা কার্যকর করার দাবি জানান। পরে উল্লেখিত চার দফা দাবিতে বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন সাতক্ষীরা জেলা শাখার পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।